advertisement
আপনি দেখছেন

বাংলা চলচ্চিত্রের মহানায়ক সালমান শাহকে হত্যা করা হয়নি। বরং পারিবারিক কলহসহ নানা কারণে মানসিক যন্ত্রণায় তিনি আত্মহত্যা করেছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। সোমবার রাজধানীর ধানমণ্ডিতে পিবিআই সদর দপ্তরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) বনজ কুমার মজুমদার।

salman shah did not commit suicide

তিনি বলেন, এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন চূড়ান্ত হয়ে গেছে। চিত্রনায়ক সালমান শাহকে হত্যার অভিযোগের পক্ষে কোনো তথ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি। দীর্ঘ তদন্তের পর এটাই প্রমাণিত হয়েছে যে, পারিবারিক কলহসহ নানা কারণে মানসিক যন্ত্রণায় তিনি আত্মহত্যা করেন।

এর আগেও ভক্ত ও পরিবারের দাবির প্রেক্ষিতে বেশ কয়েক দফায় সালমান শাহর মৃত্যুর তদন্ত করা হয়। প্রতিবারই তার মৃত্যু আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করা হলেও তা অদ্যাবধি মেনে নিতে পারেনি কেউ।

পরিবারের দাবির প্রেক্ষিতে সর্বশেষ ২০১৬ সালের শেষ দিকে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নতুন করে সালমান শাহর মৃত্যুর তদন্তভার দেয়া হয়।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রাজধানীর ইস্কাটন রোডে নিজ বাসা থেকে চিত্রনায়ক চৌধুরী মোহাম্মদ শাহরিয়ার (ইমন) ওরফে সালমান শাহর লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই সময় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেন তার বাবা কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী। পরে ১৯৯৭ সালের ২৪ জুলাই ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ করে এটিকে হত্যা মামলায় রূপান্তরিত করার আবেদন জানান।

পরবর্তীতে অভিযোগটি আমলে নিয়ে তা তদন্ত করতে সিআইডিকে নির্দেশ দেন আদালত। নির্দেশনা অনুসারে ১৯৯৭ সালের ৩ নভেম্বর আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে সিআইডি। প্রতিবেদনে সালমান শাহর মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করা হয়।

সেই প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে তার বাবা কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী ফের রিভিশন মামলা দায়ের করেন। এরপর বেশ কয়েক দফায় একে আত্মহত্যা বলে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দেয়া হলেও সালমানের পরিবার তা মানতে রাজি হয়নি।

sheikh mujib 2020