advertisement
আপনি দেখছেন

চীনের উহানে করোনাভাইরাসের কারণে আটকে পড়া ২৩ বাংলাদেশি নাগরিক ভারতের বিশেষ বিমানে করে দিল্লি নেমেছেন। আজ বৃহস্পতিবার ভারতীয় হাইকমিশনের এক ফেসবুক পোস্টে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

bangladeshi uhan delhi

ওই পোস্টে বলা হয়, ২৩ জন বাংলাদেশি নাগরিককে চীনের উহান থেকে একটি বিশেষ ভারতীয় ফ্লাইটে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তারা আজ দিল্লিতে অবতরণ করেছেন। অন্যান্য ভারতীয় নাগরিকের পাশাপাশি তাদের দিল্লির শহরতলিতে কোয়ারেন্টাইনে (পৃথক রাখা) রাখা হবে। ভারতীয় হাইকমিশন সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশের নাগরিকদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে।

এ ছাড়া একই বিমানে ১১২ ভারতীয় নাগরিকসহ অন্যান্য দেশের কয়েকজন এসেছেন বলে জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যম।

হিন্দুস্তান টাইমস বলছে, সপ্তাহব্যাপী উদ্বেগের অবসান ঘটিয়ে অবশেষে উহান থেকে দেশে ফিরলেন ১১২ জন ভারতীয়। বৃহস্পতিবার ভোররাতে তাদের নিয়ে দিল্লি বিমানবন্দরে পৌঁছায় বিমানবাহিনীর সি১৭ গ্লোবমাস্টার-৩ বিমান।

খবরে বলা হয়েছে, এদিন ভারতীয়দের সঙ্গেই দিল্লিতে ফিরেছেন করোনাভাইরাসের আঁতুরঘর উহান থেকে বেশ কয়েক জন বিদেশি নাগরিক। এদের মধ্যে রয়েছেন বাংলাদেশের বেশ কয়েক জন শিক্ষার্থী। এ ছাড়া রয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকা, মাদাগাস্কার, মিয়ানমার, মালদ্বীপ, আমেরিকা ও চীনের নাগরিকরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীনের ভারতীয় রাষ্ট্রদূত বিক্রম মিসরি টুইট করে জানিয়েছেন, ‘এই বিমানে দেশে ফিরছেন ৭৬ জন ভারতীয় নাগরিক। বিমানে রয়েছেন ২৩ জন বাংলাদেশি, ৬ জন চীনা, মিয়ানমার ও মালদ্বীপের ২ জন এবং দক্ষিণ আফ্রিকা, আমেরিকা ও মাদাগাস্কারের একজন করে নাগরিক।’

প্রসঙ্গত, এর আগে চলতি মাসের শুরুতে এয়ার ইন্ডিয়ার দুটি বিশেষ বিমানে করোনাভাইরাসের উৎস চীনের উহান শহর থেকে ৬৪৭ ভারতীয় দেশে ফেরেন। এরপরও যারা আটকা ছিলেন সেই ভারতীয়দের ফেরত আনার অনুমতি দিতে চীন ইচ্ছা করেই দেরি করছিল বলেও অভিযোগ করে নয়া দিল্লি।

sheikh mujib 2020