advertisement
আপনি দেখছেন

বহুল প্রতীক্ষিত তিস্তা পানি বণ্টন চুক্তি চলতি বছরের মধ্যেই হতে পারে বলে জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা। সোমবার ঢাকার হোটেল সোনারগাঁওয়ে ‘বাংলাদেশ এবং ভারত: একটি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক এক সেমিনারে যোগ দিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

harshabardan singla india

হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেন, তিস্তা চুক্তি নিয়ে এখন তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ চলছে। চলতি বছরের মধ্যে এ চুক্তি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া ঢাকা-নয়াদিল্লি অভিন্ন ৫৪ নদীর পানি বণ্টন ও ব্যবস্থাপনার কার্যকর সমাধান চায় ভারত।

তিনি আরো বলেন, জাতীয় নাগরিক নিবন্ধনের (এনআরসি) কোনো প্রভাব বাংলাদেশে পড়বে না। কারণ এটা একান্তই ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। আর তা আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী হচ্ছে।

সীমান্তে বাংলাদেশি নাগরিক হত্যার বিষয়ে তিনি বলেন, সীমান্তে অপরাধ কর্মকাণ্ড বন্ধে দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীদের ভূমিকা রাখতে হবে। সীমান্তে নির্বিচারে মানুষ হত্যা যতটা সম্ভব কমাতে চায় ভারত।

সীমান্ত হত্যা বন্ধে ভারত যে প্রতিশ্রতি দিয়েছিল তার কোনো ব্যত্যয় ঘটেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন, সীমান্তে মৃত্যু হার ফিফটি ফিফটি। অর্থাৎ সীমান্তে দুই দেশের সমান নাগরিকের মৃত্যু ঘটেছে। আর এ হত্যা বন্ধে জয়েন্ট পেট্রোলিংয়ের ওপর জোর দেন তিনি।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বিষয়ে ভারতীয় পররাষ্ট্র সচিব বলেন, রোহিঙ্গাদের রাখাইনে মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের যেকোনো উদ্যোগে ভারতের সমর্থন থাকবে।

আগামী ১৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকীতে অংশ নিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঢাকা আসছেন জানিয়ে শ্রিংলা বলেন, তাৎপর্যপূর্ণ ওই সফরে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের আগামী রূপরেখা নিয়ে আলোচনা হবে।

মোদির ওই সফর ঢাকা-দিল্লি সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাওয়ার বিষয়ে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখবে বলে তিনিও আশা প্রকাশ করেন।

সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশ, বিসের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক কর্নেল শেখ মাসুদ আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্রবিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী, বিস চেয়ারম্যান এম ফজলুল করিম প্রমুখ।