advertisement
আপনি দেখছেন

ইতালি থেকে দেশে ফেরত আসা দুই ব্যক্তিকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। ওই দু্ইজনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রয়েছে কিনা তা জানতে তাদের সেখানে রাখা হয়েছে।

dhaka airport terminal

সোমবার বিষয়টি নিশ্চিত করে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন জানান, ইতালি থেকে দেশে ফেরত আসা দুইজন করোনায় আক্রান্ত কিনা তা জানতে তাদের বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য ক্যাম্পে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

এদিকে, রোববার দেশে তিনজন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার পর অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করছে প্রশাসন। পাশাপাশি চীন, ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান, সিঙ্গাপুর ও থাইল্যান্ড থেকে দেশে আসা যাত্রীদের বাধ্যতামূলকভাবে বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহরিয়ার সাজ্জাদ জানান, এই ছয় দেশে থেকে আসা যাত্রীদের থার্মাল স্ক্যানার দিয়ে শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হচ্ছে। পাশাপাশি বিমানবন্দরে অবতরণের পর তাদের ‘হেলথ ডিক্লারেশন’ ফরম দেয়া হচ্ছে। যেখানে তাদের শারীরিক বিষয়সহ বিভিন্ন তথ্য পূরণ করতে হবে। এ ছাড়া এই ছয় দেশ থেকে আসা যাত্রীরা বাধ্যতামূলকভাবে ১৪ দিন নিজের বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

তিনি আরো জানান, তবে বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার সময় যদি কারোর শরীরে ১০০ ডিগ্রি ফারেনহাইটের বেশি তাপমাত্রা পাওয়া যায়, তহলে তাকে বিমানবন্দর থেকে সরাসরি কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালের কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হবে।

এর আগে রোববার প্রথমবারের মতো দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। এদের মধ্যে দুইজন ইতালি থেকে দেশে ফিরেছেন এবং একজন তাদের সংস্পর্শে এসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

sheikh mujib 2020