advertisement
আপনি দেখছেন

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর মূল অনুষ্ঠান ডিজিটাল নির্ভর হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। মঙ্গলবার রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে অনুষ্ঠিত 'মুজিববর্ষ বাস্তবায়ন আন্তর্জাতিক উপকমিটি'র সভা শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

foreign minister momen 4

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ১৭ মার্চ নির্ধারিত দিনই অনুষ্ঠিত হবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান। কিন্তু দেশে করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ায় ওইদিনের অনুষ্ঠানে কিছু নতুনত্ব আনা হয়েছে। ওইদিন বড় গণজামায়েত না হলেও ভিডিওর মাধ্যমে দেশ ও দেশের বাইরে অনুষ্ঠানটির সংযোগ থাকবে।

তিনি আরো বলেন, ওইদিন ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে সারাবিশ্বের সঙ্গে মুজিববর্ষের অনুষ্ঠান সংযোগ করা হবে। এছাড়া মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে আগামী ২০ মার্চ শিশুদের সঙ্গীত অনুষ্ঠান, ২২ ও ২৩ মার্চ জাতীয় সংসদে বিশেষ অধিবেশন এবং ২৬ ও ২৭ মার্চ অতিথিদের নিয়ে অনুষ্ঠান করা হবে। তবে সবগুলো অনুষ্ঠানই জনসমাগম এড়িয়ে করা হবে।

মুজিব জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে সারাবছর মুজিববর্ষের অনুষ্ঠান করা হবে উল্লেখ করে এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, করোনাভাইরাস বিষয়ে সার্বিক পরিস্থিতি উন্নতি হলে পরবর্তীতে কোনো এক সময় বড় করে মুজিব জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান করার চিন্তা রয়েছে।

এর আগে রোববার দেশে করোনা আক্রান্ত তিনজন রোগী শনাক্ত হওয়ায় মুজিববর্ষের অনুষ্ঠান নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দেয়। পরে ওইদিন রাতেই সংবাদ সম্মেলন করে মুজিব জন্মশতবর্ষ উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী জানান, মুজিববর্ষের অনুষ্ঠান পুনর্বিন্যাস করা হবে।