advertisement
আপনি দেখছেন

পোশাক শ্রমিকরা চলতি এপ্রিল মাসের বেতন আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্যেই পাবেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। আজ রোববার গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে তিনি এ কথা জানান।

fazle kabir bangladesh bankবাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির।

ফজলে কবির বলেন, রফতানি খাতের সঙ্গে জড়িত শ্রমিক-কর্মচারীদের তিন মাসের বেতন-ভাতার জন্য পাঁচ হাজার কোটি টাকার যে তহবিল ঘোষণা করা হয়েছে, সে বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক একটি নীতিমালা প্রণয়ন করেছে। শ্রমিকদের এপ্রিল, মে ও জুন মাসের বেতন-ভাতা এই তহবিল থেকে দেয়া হবে। আশা করা যায়, চলতি মাসের বেতন ৩০ এপ্রিলের মধ্যেই পাবেন তারা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর আরো বলেন, করোনার সঙ্কটের মধ্যেও সুষ্ঠুভাবে অর্থের সরবরাহ নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ ব্যাংক। তারই অংশ হিসেবে বেশ কয়েকটি পুনঃঅর্থায়ন তহবিলের আকার বৃদ্ধি করা হয়েছে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়- এক্সপোর্ট ডেভেলপমেন্ট ফান্ড ৩ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলারের ছিল। তা বাড়িয়ে এখন ৫ বিলিয়ন ডলার করা হয়েছে। সেইসঙ্গে এই ফান্ডের সুদের হার ২ দশমিক ৭ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২ শতাংশ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) পরিস্থিতি মোকাবেলায় রফতানিমুখী শিল্পপ্রতিষ্ঠানের জন্য ৫ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেন। এর পর বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, যেসব সচল প্রতিষ্ঠান তাদের উৎপাদিত পণ্যের ন্যূনতম ৮০ শতাংশ রফতানি করছে সেসব প্রতিষ্ঠান এই প্যাকেজ থেকে বিনা সুদে ঋণ পাবে। সেইসঙ্গে ঋণের অর্থ দিয়ে শুধু শ্রমিক-কর্মচারীদের এপ্রিল, মে ও জুন মাসের বেতন-ভাতা পরিশোধ করা যাবে। তবে ব্যাংকগুলো সুদবিহীন এই ঋণে সর্বোচ্চ ২ শতাংশ হারে সার্ভিস চার্জ নিতে পারবে।

গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। গতকাল শনিবারের তথ্য অনুযায়ী এ পর্যন্ত দেশে মোট ৭০ জনকে করোনা রোগী হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩০ জন সুস্থ হয়েছেন। মারা গেছে ৮ জন।