advertisement
আপনি দেখছেন

সরকারের পক্ষ থেকে করোনাভাইরাস শনাক্তের কিট তৈরি ও ল্যাবের চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়েছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রকে। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ বিষয়ক নির্দেশনা দেয়। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

gonoshastho centre terst kit

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর রক্তের নমুনা তাদের কাছে পৌঁছে গেছে। যা দিয়ে কিটে পরীক্ষামূলক টেস্ট করে দেখবেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গবেষকরা।

ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, আশা করা যাচ্ছে, আগামী ১১ এপ্রিল থেকে সরকারকে এসব কিট সরবরাহ করতে সক্ষম হবেন তারা।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের এই কিটটি আবিষ্কার করেন চার চিকিৎসক নিহাদ আদনান, মোহাম্মদ রাশেদ জমিরউদ্দিন ও ফিরোজ আহমেদ।

এ সম্পর্কে ডা. জাফরুল্লাহ জানিয়েছিলেন, রক্তের গ্রুপ যে প্রক্রিয়ায় চিহ্নিত হয় ঠিক সে রকম উপায়েই করোনাভাইরাস শনাক্ত করবে তাদের কিটটি। এর মাধ্যমে ১০ থেকে ১৫ মিনিটের মধ্যেই জানা যাবে দেহে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি আছে কি নেই।

২০০৩ সালের দিকে সার্স ভাইরাস বিশ্বে মহামারি আকার ধারণ করে। সে সময় বাংলাদেশি গবেষক ড. বিজন কুমার শীল সার্স ভাইরাস শনাক্তকরণ কিট আবিষ্কার করেন। এই কিটটিই নতুন রূপে সাজিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গবেষকরা করোনাভাইরাস শনাক্তের জন্য ব্যবহার করছেন।

সার্স ভাইরাস করোনা শ্রেণিরই আরেকটি ভাইরাস। তাই গবেষকদের আগের কিটের খুব বেশি অংশ পরিবর্তিত করতে হয়নি বলে জানা গেছে।