advertisement
আপনি দেখছেন

দেশে নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) বিস্তার রোধে টানা দুই মাসেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর অবশেষে খুলছে রাজধানীর জনপ্রিয় বিপণী বিতান নিউমার্কেট। আগামীকাল রোববার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ ক্রেতা-বিক্রেতাদের যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে খোলা হবে মার্কেটটি।

new market closedনিউমার্কেট- পুরোনো ছবি

বিষয়টি নিশ্চিত করে নিউ মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আমিনুল ইসলাম শাহীন জানান, বর্তমানে দেশের মানুষ একটি কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সংক্রমণের ঝুঁকি জেনেও জীবিকার তাগিদে আগামীকাল রোববার থেকে নিউ মার্কেটের দোকান-পাট খোলা হচ্ছে। আপাতত মার্কেটের চারটি গেটের মধ্যে তিনটি ক্রেতাদের জন্য খুলে দেওয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, মার্কেট খোলা হলেও ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে বেশ কিছু সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নিয়েছেন তারা। মার্কেটে আসা ক্রেতা ও বিক্রেতাদের অবশ্যই মাস্ক পরিধান করতে হবে। মার্কেটের প্রবেশপথগুলোতে সাবান পানি বা ব্লিচিং পাউডার মিশ্রিত পানি দিয়ে ভেজানো চটের বস্তা ও নারিকেলের ছোবড়া দিয়ে তৈরি পাপোস দেওয়া হবে। যাতে ক্রেতাদের জুতার তলা জীবাণুমক্ত থাকে।

এছাড়া মার্কেটে ক্রেতাদের হাত ধোয়ার জন্য আপাতত স্যাভলন হ্যান্ডওয়াশ মিশ্রিত পানি রাখা হবে। এসব স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের জন্য ইতোমধ্যে ৪০ জন কর্মী নিয়োজিত করেছে মার্কেট কর্তৃপক্ষ।

শুধু নিউ মার্কেটই নয়, এই সপ্তাহে খোলা হবে পার্শ্ববর্তী চন্দ্রিমা সুপার মার্কেট ও চাঁদনী চক সুপার মার্কেটসহ অন্যান্য বিপণী বিতানগুলো।

চন্দ্রিমা সুপার মার্কেটের দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মনজুরুল ইসলাম মনজু জানান, মঙ্গলবার সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় আগামী বুধবার থেকে মার্কেট খুলে দেওয়ার চিন্তা করছেন তারা। দীর্ঘদিন মার্কেট বন্ধ থাকায় ব্যবসায়ীরা ঋণসহ নানা আর্থিক সংকটে পড়েছেন। তাই জীবনের ঝুঁকি জেনেও মার্কেট খোলার চিন্তা করছেন তারা।

প্রসঙ্গত, দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরুর পর সরকারের সাধারণ ছুটি ঘোষণার কয়েকদিন আগেই দোকান-পাট বন্ধ করে দেন নিউ মার্কেটের ব্যবসায়ীরা। মাঝখানে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সরকার দোকান-পাট ও শপিং মল খোলার অনুমতি দিলেও ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সুরক্ষার স্বার্থে সেই সুযোগ কাজে লাগায়নি নিউ মার্কেটের ব্যবসায়ীরা। তবে এখন জীবিকার তাগিতে ঝুঁকির মধ্যেই মার্কেট খুলতে বাধ্য হচ্ছেন তারা।

sheikh mujib 2020