advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের দিক থেকে এগিয়ে রয়েছে চীন। তবে সেখানে করোনা রোগী কমে যাওয়ায় চূড়ান্ত ধাপের পরীক্ষা করাতে পারছে না তারা। ফলে তৃতীয় ধাপের এই পরীক্ষার জন্য বাংলাদেশকে পরীক্ষাগার হিসেবে চায় বেইজিং। ইতোমধ্যে ঢাকার সঙ্গে প্রাথমিক আলোচনাও করেছে।

corona vaccine

কিন্তু বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি। শিগগিরই জানানো হতে পারে বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্র। তবে পুরোটাই সরকারের সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করছে।

এ বিষয়ে সরকারের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণের মাত্রা বাড়ছে। তাই বলে মাসের পর মাস আমাদের সবকিছু বন্ধ করে রাখা যাবে না। এমতাবস্থায় ভ্যাকসিন খুবই জরুরি। বাংলাদেশসহ পুরো বিশ্বই এটির অপেক্ষায় রয়েছে।

তিনি বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভ্যাকসিন উৎপাদনের কাজ চললেও চীন এক্ষেত্রে কিছুটা এগিয়ে। তাদের দেশে রোগী কমে যাওয়ায় ভ্যাকসিনের তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা বাংলাদেশে চালাতে চায় তারা। যদি এ কাজে সফল হয়, তাহলে বাংলাদেশে এর প্রাপ্যতা অনেকটাই নিশ্চিত হবে।

corona virus test

আরেক কর্মকর্তা জানান, এ বিষয়ে আলোচনা এখনো মৌখিক পর্যায়ে। চীন এখনো আনুষ্ঠানিক চিঠি দেয়নি। তবে তারা সব ধরনের সম্ভাবনা যাচাই করছে। আরো কয়েকটি দেশের সঙ্গেও আলোচনা করছে। এই ধাপে ১৫-২০ হাজার মানুষের শরীরে টেস্ট করতে হবে। সে জন্য বাংলাদেশকে তারা উপযুক্ত ভাবছে।

জানা গেছে, চীন ইতোমধ্যে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা শেষ করে তৃতীয় ধাপের পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছে। সে জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাত ও কানাডায় পরীক্ষার অনুমোদন পেয়েছে চায়না ন্যাশনাল বায়োটেক গ্রুপ (সিএনবিজি)। পাশাপাশি বাংলাদেশে করোনার সংক্রমণের গ্রাফ বাড়তে থাকায় এখানেও পরীক্ষা চালাতে চায় দেশটি।

sheikh mujib 2020