advertisement
আপনি দেখছেন

মহামারি করোনাভাইরাসের মোকাবেলায় বাংলাদেশকে ৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪২৪ কোটি ৫৫ লাখ টাকা) নমনীয় ঋণ দিচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়া। ‘ইডিসিএফ প্রোগ্রাম লোন ফর কোভিড-১৯ ইমার্জেন্সি রেসপন্স প্রোগ্রাম অব বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্রোগ্রামের আওতায় এ ঋণ দেয়া হবে।

Benapole checkpoint seized 50 thousand US dollars

আজ শনিবার অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি এ বিষয়ে মতামত চেয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ।

চিঠিতে বলা হয়, ‘ইডিসিএফ প্রোগ্রাম লোন ফর কোভিড-১৯ ইমার্জেন্সি রেসপন্স প্রোগ্রাম অব বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্রোগ্রামটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ‘দক্ষিণ কোরিয়ার ইকোনোমি ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন ফার্ম (ইডিসিএফ) বাজেট সাপোর্ট হিসেবে ৫০ মিলিয়ন ডলার নামনীয় ঋণ প্রদানে রাজি হয়েছে।

এদিকে সম্প্রতি ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে এবং ভালো কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে মোট তিনটি প্রকল্পে ১ দশমিক ০৫ বিলিয়ন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৯ হাজার কোটি টাকা) ঋণের অনুমোদন দিয়েছে বিশ্বব্যাংক।

গত ২০ জুন এক বিবৃতিতে তারা জানায়, এ ঋণের ফলে কমপক্ষে ২ দশমিক ৫ লাখ তরুণের কর্মসংস্থান হবে। পাশাপাশি বেসরকারি বিনিয়োগ ২ বিলিয়ন ডলার হবে। এতে করে সরকারের প্রতিবছর ২০০ মিলিয়ন ডলার সাশ্রয় হবে।

এ ঋণের মধ্যে ৫০০ মিলিয়ন ডলার দেয়া হবে বেসরকারি বিনিয়োগ ও ডিজিটাল উদ্যোক্তা তৈরি প্রকল্পে। এগুলো থেকে মূলধন নিয়ে দেশের সফটওয়্যার পার্ক আর ইপিজেডে ২ বিলিয়ন ডলার বেসরকারি বিনিয়োগ হবে। যা প্রায় ১ দশমিক ৫ লাখ কর্মসংস্থান তৈরির সুযোগ সৃষ্টি করবে।

আর কর্মসংস্থানের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ হবে নারী। যার ৪০ শতাংশ সফটওয়্যার পার্ক এবং ২০ শতাংশ ইপিজেডে হবে। এ ছাড়া অর্থনীতি ও ডিজিটাল সরকার ব্যবস্থা আরো শক্তিশালী করা প্রকল্পে ২৯৫ মিলিয়ন ডলার ঋণ অনুমোদন দিয়েছে সংস্থাটি।

sheikh mujib 2020