advertisement
আপনি দেখছেন

মানবপাচার ও অবৈধ মুদ্রা পাচারের অভিযোগে বর্তমানে কুয়েতের কারাগারে বন্দি আছেন লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল। তবে এ বিষয়ে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদকে কুয়েত সরকার বা সংশ্লিষ্ট কেউই অফিশিয়ালি কোনো তথ্য দেয়নি বলে জানিয়েছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

mp papul newসংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল

আজ সোমবার গণমাধ্যমকে তিনি জানান, ওই সংসদ সদস্যের গ্রেপ্তারের বিষয়ে অফিশিয়ালি আমাদের কাছে এখন পর্যন্ত কোনো খবর নেই। তবে আমরা গণমাধ্যম থেকে জেনেছি। কিন্তু কুয়েত থেকে অফিশিয়ালি কোনো তথ্য আমাদের কাছে আসেনি।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, সংবিধানের কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী, ওই সংসদ সদস্যের গ্রেপ্তার বা আটকের কোনো খবর কোথাও থেকে দেওয়া হয়নি। নিয়ম অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের এটা আমাদের জানানোর কথা। দেশের অন্য কোনো মন্ত্রণালয় বা সংস্থা এ বিষয়টি সম্পর্কে আনুষ্ঠানিকভাবে অবহিত হয়েছেন কি না সে ব্যাপারেও জানা নেই।

national parlament

এর আগে সম্প্রতি পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছিলেন, বিদেশের মাটিতে একজন সংসদ সদস্যের আটকের ঘটনা দেশের জন্য অত্যন্ত অসম্মানজনক। অবশ্য ওই সাংসদের আটকের বিষয়ে কুয়েত সরকারের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি।

এ বিষয়ে সংসদ উপ সচিব (আইন) নাজমুল হক বলেন, নিয়ম অনুযায়ী কোনো সদস্য সদস্য গ্রেপ্তার হলে তা স্পিকারকে জানাতে হয়। গ্রেপ্তারের পর মুক্তি পেলেও একই বিধান। তবে গ্রেপ্তারের বিষয়ে বাংলাদেশে বা বিদেশে হলে কী হবে তা আলাদাভাবে উল্লেখ নেই। বিদেশের ক্ষেত্রে হলেও কোনো না কোনো কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে তা স্পিকারকে জানাতে হবে বলে মনে হয়।

গত ৭ জুন এমপি পাপুলকে কুয়েতে গ্রেপ্তার করা হয়। কুয়েতের অপরাধ তদন্ত বিভাগের হাতে প্রয়োজনীয় প্রমাণ থাকার পরও প্রথমে তিনি দোষ স্বীকার করেননি। পরবর্তীতে তার সামনে ভুক্তভোগীদের ৭ জনকে হাজির করা হয়। তারা যখন ঘটনা বর্ণনা করছিলেন তখন তিনি চুপ ছিলেন।

sheikh mujib 2020