advertisement
আপনি দেখছেন

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের (ডিজি) অনুরোধেই গত ২১ মার্চ রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা জানান।

health minister jahid malekস্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে গেলেও এতে করে স্বাস্থ্যসেবায় কোনো সমস্যা আছে বলে মনে করি না। তাছাড়া ভুল বোঝাবুঝি হতেই পারে। তাই বলে স্বাস্থ্যসেবা কোনোভাবেই ব্যাহত হচ্ছে না।

জেকেজি এবং রিজেন্ট হাসপাতালের প্রতারণার বিষয়ে তিনি বলেন, এই দুটি প্রতিষ্ঠানকে কিছু কাজের জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। তারা কিছু স্যাম্পল কালেকশন করবে। আমরা শুধু এতটুকুই জানি। তারপরও তারা যদি অন্যায় কিছু করে থাকে, তাহলে তার জন্য সে প্রতিষ্ঠান দায়ী।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে যাওয়ার ব্যাখ্যা দিয়ে মন্ত্রী বলেন, করোনা চিকিৎসায় রিজেন্ট হাসপাতালকে নিয়োগ দেয়ার কিছু প্রক্রিয়া ছিল। সেগুলো ডিজি অফিস পালন করে। তারপরই চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। তখন ডিজির অনুরোধে আমিও সেখানে উপস্থিত হই।

regent hospital cv 19রিজেন্টের সঙ্গে চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠান

তিনি বলেন, ওইদিন আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা ছিল। যেখানে অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের সচিবরাও ছিলেন। তখন ডিজি চুক্তি স্বাক্ষরের কথা জানান। বলেন, দুপুরের খাবারের পর রিজেন্টের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর হবে। এ কথায় আমরা খুশি হই। কারণ তখন বেসরকারি হাসপাতালগুলো করোনার চিকিৎসা দিতে দ্বিধায় ছিল।

তারপর রিজেন্টের কর্তৃপক্ষ আসলো, চুক্তি স্বাক্ষর হলো। খুশি হয়ে পরে সেখান থেকে চলে আসি। পরবর্তীতে চিকিৎসার নাম করে যে ঘটনাগুলো ঘটেছে তা খুবই দুর্ভাগ্যজনক ও ন্যাক্কারজনক। সেখানে টেস্ট করে কি না তাও আমি জানি না। তবে তারা যে কাজ করেছে, অন্যায় করেছে, যোগ করেন মন্ত্রী।

এ সময় স্বাস্থ্যখাতে কোনো সিন্ডিকেট নেই জানিয়ে তিনি বলেন, আমি এ বিষয়ে কিছু জানি না। কোথাও কোনো সিন্ডিকেট আমার চোখে পড়েনি। সবকিছু নিয়মানুযায়ী চলছে। করোনা মোকাবেলায় আমরা ঠিকঠাকভাবে এগিয়ে যাচ্ছি।

sheikh mujib 2020