advertisement
আপনি দেখছেন

বিশ্বব্যাপী দুর্নীতির বিরুদ্ধে কাজ করে থাকে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআই)। সংস্থাটির বাংলাদেশ চ্যাপ্টার তথা টিআইবিও দেশে সংগঠিত দুর্নীতির বিরুদ্ধে বরাবরই সরব। নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান প্রথম আলোকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে দুর্নীতির নানা দিক নিয়ে কথা বলেছেন। বিশেষকরে করোনাকালের দুর্নীতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তিনি।

iftekharuzzaman tibইফতেখারুজ্জামান

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, দুর্নীতি সব দেশেই হয়। তবে আমাদের দেশে এটা ক্ষমতার অনেক গভীরে প্রোথিত। সেজন্য অধিকাংশ দুর্নীতির বিচার হয় না। এতো গেল যেগুলো প্রকাশ পায় সেগুলোর কথা। এছাড়া প্রায় ৯০ শতাংশ দুর্নীতিই শেষ পর্যন্ত প্রকাশিত হয় না। কারণ আমাদের দেশে দুর্নীতির সুবিধাভোগী প্রশাসন কিংবা ক্ষমতার সব স্তরের মানুষ, তাই কেউ কারো বিরুদ্ধে মুখ খোলে না।

করোনাকালের দুর্নীতি নিয়ে তিনি বলেন, আমাদের রাজনীতি কিংবা প্রশাসনে কতটা ভয়ানকভাবে লেপ্টে গেছে দুর্নীতি তার প্রমাণ পাওয়া গেলো করোনাভাইরাসের এই সময়ে। মানুষের অসহায়ত্ব নিয়ে ছিনিমিনি খেলা হলো। টাকা আত্মসাতের জন্য পজিটিভ রিপোর্ট হয়ে গেলো নেগেটিভ, আবার উল্টো ঘটনাও ঘটেছে। করোনাকালে এত বেশি দূর্নীতি আর কোনো দেশে হয়নি।

tib press breifing

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সম্পর্কে ইফতেখারুজ্জামানের ভাষ্য, দুর্নীতি উদঘাটন এবং সেসবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ক্ষেত্রে দুদক একটি সীমানা টেনে নিয়েছে, যেই সীমানার বাইরে তারা অনুসন্ধান করতে চায় না। তাদের ভয়, না জানি আবার কোন ক্ষমতাসীনের নাম বেরিয়ে আসে! অন্তত দুদক যদি তার দায়িত্বটা ঠিকঠাকভাবে পালন করে, তাহলেও অনেকখানি কমে যাবে দুর্নীতির বিস্তার।

sheikh mujib 2020