advertisement
আপনি দেখছেন

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আব্দুল মান্নান বলেছেন, করোনার ভ্যাকসিন কেনার জন্য সর্বোচ্চ অর্থ বরাদ্দ রাখা হয়েছে। চাইলে যেকোনো সময় যাতে ভ্যাকসিন কেনা যায়- তার জন্যও প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার। আর এরই অংশ হিসেবে সরকারের পক্ষ থেকে প্রাথমিকভাবে ২৫ থেকে ৩০ লাখ ভ্যাকসিন কেনার জন্য আগাম বুকিং দেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

corona vaccineকরোনার ভ্যাকসিন, প্রতীকী ছবি

আজ সোমবার সচিবালয়ে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত এক বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তিনি বলেন, কারা আগে ভ্যাকসিন পাবেন সে ব্যাপারে একটি নীতিমালা করা হবে। তবে নীতিমালায় চিকিৎসকসহ অন্যান্য সম্মুখযোদ্ধা ও বয়োবৃদ্ধদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

দেশে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে করোনার ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু হবে এবং আগামী দুই দিনের মধ্যে এ বিষয়ে জানা যাবে বলে জানিয়ে স্বাস্থ্য সচিব বলেন, গোটা বিশ্বে ৯টি কোম্পানি তাদের ভ্যাকসিন গবেষণায় এগিয়ে রয়েছে। এর মধ্যে একটি চীনা কোম্পানির ভ্যাকসিনের ট্রায়ালের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া আরো ৫টি কোম্পানির সঙ্গে ভ্যাকসিনের ট্রায়াল বাংলাদেশের সার্বক্ষণিক যোগাযোগ আছে।

health secretary abdul mannanস্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আব্দুল মান্নান

আব্দুল মান্নান বলেন, একটি ভারতীয় প্রতিষ্ঠান কিছু প্রস্তাব দিয়েছে। যোগাযোগ চলছে রাশিয়ার সঙ্গেও। তারা বাংলাদেশের বড় কোম্পানিগুলোকে- ইনসেপ্টা, পপুলার, বেক্সিমকো, হেলথ কেয়ার, স্কয়ার- কাজে লাগাতে চায়। এ ছাড়া বেলজিয়াম ও ফরাসি কোম্পানিও বাংলাদেশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে।

চীনা প্রতিষ্ঠানের ভ্যাকসিনের ট্রায়াল বাংলাদেশে পরিচালনার বিষয়ে স্বাস্থ্য সচিব বলেন, তাদের চিঠি পেলে সেটি জানা যাবে যে, প্রক্রিয়াটি কীভাবে শুরু হবে। রোববারও তাদের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। দুই এক দিনের মধ্যে তারা চিঠি দেবে বলে জানিয়েছে।

sheikh mujib 2020