advertisement
আপনি দেখছেন

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নিতে আজ বুধবার থেকে অনলাইন নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সরকারের ‘সুরক্ষা’ নামের মোবাইল ও ওয়েবভিত্তিক অ্যাপের মাধ্যমে আগ্রহীরা নিবন্ধন করতে পারবেন। নিবন্ধন ছাড়া কাউকেই ভ্যাকসিন দেয়া হবে না।

bd govt vacc appনিবন্ধন প্রক্রিয়া

আজ বুধবার গণমাধ্যমকে তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম।

তিনি বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) গাইডলাইন অনুযায়ী সকল সরকারি ও বেসরকারি স্বাস্থ্যকর্মী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বীরঙ্গনা, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, সামরিক ও আধা-সামরিক বাহিনীর সদস্য, রাষ্ট্র পরিচালনার নিমিত্তে অপরিহার্য কর্মকর্তা-কর্মচারী, সাংবাদিক, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, ধর্মীয় প্রতিনিধিগণ, মরদেহ সৎকার কার্যে নিয়োজিত ব্যক্তিরা ভ্যাকসিন পাবেন।

জরুরি বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা-কর্মচারী, রেল, বিমান ও নৌ বন্দরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারী, প্রবাসী অদক্ষ শ্রমিক, জাতীয় দলের খেলোয়াড়, ফাস্টট্র্যাক-ভুক্ত প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিক এবং ৫৫ বছর ও তদুর্ধ্ব সকল নাগরিক কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনেশনের জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন, যোগ করেন স্বাস্থ্য ডিজি।

সাধারণ মানুষকে ভ্যাকসিন পেতে হলে আগে নিবন্ধন করতে হবে। এক্ষেত্রে আগ্রহীদের সরকারের সুরক্ষা প্ল্যাটফর্মের ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনে গিয়ে অথবা মোবাইলে অ্যাপ ডাউনলোড করে নিবন্ধনের কাজটি সারতে হবে।

এ বিষয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম বলেন, যাদের ইন্টারনেট সুবিধা বা অ্যাপ ব্যবহারের মতো ডিভাইস নেই, তাদের জন্যও বিকল্প ব্যবস্থা নেয়া হবে। এক্ষেত্রে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে ফ্রি নিবন্ধন করার সুযোগ দেয়ার পরিকল্পনা নেয়া হচ্ছে।

আর অ্যাপের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে হলে আগে (www.surokkha.gov.bd) এই ওয়েবসাইটে গিয়ে ‘রিয়েল টাইম’ অ্যাপটি ফ্রি ডাউনলোড করা লাগবে। এরপর নিবন্ধন শেষে সেখান থেকেই বিস্তারিত তথ্য জানা যাবে। তবে ১৮ বছরের নিচের কেউ নিবন্ধন করতে পারবে না। কারণ, তাদের ওপর অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল করা হয়নি।

পরিচয় যাচাইয়ের জন্য অ্যাপটিতে মোট ১৮টি শ্রেণি করা হয়েছে। যার মধ্যে একটি সিলেক্ট করতে হবে। এরপর জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর ও জন্ম তারিখ দিয়ে নিবন্ধন শুরু করতে হবে।

health ministry

যেভাবে নিবন্ধন করবেন

=) প্রথমে জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর যাচাই করা হবে। সব ঠিক থাকলে স্ক্রিনে নিবন্ধনকারীর নাম দেখানো হবে বাংলা ও ইংরেজিতে। সেখানে একটি ঘরে মোবাইল ফোন নম্বর চাওয়া হবে। ওই নম্বরে পরবর্তীতে সকল তথ্য এসএমএস করা হবে।

=) মোবাইল নম্বর দেয়ার পর একটি ঘর পূরণ করতে হবে। সেখানে নিবন্ধনকারীর দীর্ঘমেয়াদী রোগ বা কো-মরবিডিটি আছে কি না তা জানাতে হবে। আর যদি রোগ থাকে, তাহলে সেটির নাম উল্লেখ করতে হবে।

=) সেখানে আরেকটি ঘর থাকবে। পেশা এবং তিনি কোভিড-১৯ সংক্রান্ত কাজে সরাসরি জড়িত কি না, তা জানাতে হবে।

=) তারপর বর্তমান ঠিকানা ও কোন কেন্দ্র থেকে ভ্যাকসিন নিতে ইচ্ছুক, তা অপশন নির্ধারণ করতে হবে।

=) ফরম সেভ করলে নিবন্ধনকারীর দেয়া মোবাইল নম্বরে একটি ওটিটি কোড পাঠানো হবে এবং সেই কোড দিয়ে ‘স্ট্যাটাস যাচাই’ বাটনে ক্লিক করলে নিবন্ধনের কাজ সম্পন্ন হবে।

=) এরপর ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজের তারিখ ও কেন্দ্রের নাম এসএমএসের মাধ্যমে জানানো হবে।

=) এরপর জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর ও জন্ম তারিখ দিয়ে অ্যাপে আবারও লগইন করতে হবে। এসএমএসের মাধ্যমে পাওয়া ওটিপি কোড দিয়ে ভ্যাকসিন কার্ড ডাউনলোড করতে হবে।

=) এসএমএসে প্রাপ্ত তারিখ অনুযায়ী ভ্যাকসিন কার্ড ও জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে নির্ধারিত কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে হবে।

=) এভাবে দুটি ডোজ নেয়া শেষ হলে সুরক্ষা প্ল্যাটফর্মের ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন থেকে সনদ দেয়া হবে।