advertisement
আপনি পড়ছেন

গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁর সার্বিক পরিস্থিতি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে। শনিবার সকাল সাতটা ৪০ মিনিটের পর হামলাকারীদের ধরতে সর্বাত্মক অভিযানে নামে যৌথ বাহিনী। অভিযান শুরুর ৪০ মিনিটের মধ্যেই নিয়ন্ত্রণে চলে আসে পরিস্থিতি।

gulshan crisis situation is under control of joint force

অভিযানের শুরুতেই নারী ও শিশুসহ পাঁচজনকে উদ্ধার করা হয়। কিছুক্ষণের মধ্যে উদ্ধার হন আরো আট জন। অর্থাৎ মোট ১৩জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়। এ সময় মৃত উদ্ধার করা হয় পাঁচজনকে। এদের কারোরই পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা সম্ভব হয়নি।

গতকাল রাত নয়টার দিকে রেস্তোরাঁটিতে স্বশস্ত্র কয়েকজন যুবক ঢুকে পড়েন এবং ভিতরের সবাইকে জিম্মি করেন। রেস্তোরাঁটির ভিতরে বেশির ভাগ বিদেশি নাগরিক ছিলেন। বাংলাদেশের যৌথ বাহিনী চূড়ান্ত অভিযান শুরুর আগেই আইএস এই ঘটনার দায় স্বীকার বিবৃতি দেয়। তাদের বিবৃতি প্রকাশ করে দুষ্কৃতিকারীদের গতিবিধি লক্ষ্য করা মার্কিন ওয়েবসাইট সাইট ইন্টিলিজেন্স।

সকালে যৌথ বাহিনীর অভিযানের অন্তত আধঘণ্টা আগে আইএস তাদের কথিত সংবাদ সংস্থা আমাক-এ ২৪ জনকে মেরে ফেলার দাবি করে। সঙ্গে তারা কিছু রক্তাক্ত ছবিও প্রকাশ করে। প্রকাশিত ছবিতে অন্তত ১৫ জনকে শনাক্ত করা গেছে।

এ দিকে ভিতরে কতোজনকে মেরে ফেলা হয়েছে, আসলে কতোজন ছিলো, হামলাকারীদের ভাগ্যে কী ঘটলো; এ সব বিষয়ে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি। ধারণা করা হচ্ছে, অভিযান সমাপ্ত ঘোষণার পর এ ব্যাপারে সংবাদ মাধ্যমকে অভিহিত করা হবে।

আপনি আরো পড়তে পারেন

২৪ বিদেশিকে মেরে ফেলা হয়েছে, আইএসের দাবি

কমান্ডো অভিযান: ১২জনকে জীবিত উদ্ধার, নিহত ৫

জিম্মিদের উদ্ধারে চূড়ান্ত অভিযান শুরু

এক সন্দেহভাজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক

গুলশানের রেস্টুরেন্ট থেকে দুইজন উদ্ধার