advertisement
আপনি দেখছেন

মহামারি করোনার ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ রুখতে সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউনের প্রথম দিন ছিল গতকাল বুধবার (১৪ এপ্রিল)। এদিন লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশ বেশ কড়াকড়ি আরোপ করে। চিকিৎসকদের অবাধ যাতায়াতের কথা থাকলেও রাজধানী ঢাকায় একজন চিকিৎসককে জরিমানা করা হয়। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার পর ওই চিকিৎসকের জরিমানার টাকা ফেরত দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

dhaka lock down

করোনার বিরুদ্ধে সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে যারা লড়াই করে যাচ্ছে, তাদের মধ্যে চিকিৎসকরাই অগ্রভাগে। লকডাউনে বাইরে বেরুতে যে মুভমেন্ট পাসের নিয়ম চালু করা হয়েছে, চিকিৎসকদের তা প্রয়োজন হবে না বলে আগেই জানিয়ে দেয়া হয়। তারপরও গতকাল বেশ কয়েকজন চিকিৎসক কর্মস্থলে যাওয়ার সময় হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে জানা গেছে।

এরমধ্যে এক চিকিৎসককে লকডাউন ভঙ্গের দায়ে ৩ হাজার জরিমানা করা হয়েছে, তার নাম নাজমুল ইসলাম। স্কয়ার হাসপাতালের এই চিকিৎসকের স্ত্রী জরিমানার স্লিপটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করলে প্রতিবাদ জানান অনেকেই। আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ জানিয়েছে চিকিৎসকদের সংগঠন ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি রাইটস অ্যান্ড রেসপনসিবিলিটিজ (এফডিআরএস)।

police logo new

প্রতিবাদ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ। ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, পরিচয় দেয়ার পরও একজন চিকিৎসকের নামে মামলা দেওয়াটা মোটেও ভালো কিছু নয়। এটা মহা-অন্যায় হয়েছে।

এমন প্রতিবাদের মুখে পুলিশের পক্ষ থেকে ওই চিকিৎসককে ফোন দিয়ে জরিমানা মওকুফের কথা জানানো হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার মধ্যে ভুক্তভোগীর হাতে জরিমানার ৩ হাজার টাকা পৌঁছে দেওয়া হবে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ।