advertisement
আপনি দেখছেন

সম্প্রতি প্রতিমাসে একবার করে তরল পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) দাম পরিবর্তনের (বাড়ানোর) ঘোষণা দিয়েছে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। এই ঘোষণার তীব্র আপত্তি জানিয়েছে কনজিউমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব)। এ নিয়ে ক্যাবের পক্ষ থেকে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে বিইআরসি’র কাছে।

gas cylinder in car 1

গতকাল বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) ক্যাবের আইনজীবীর মাধ্যমে এই চিঠি পাঠানো হয়। সেখানে স্পষ্ট বলা হয়েছে, নির্দেশনা অনুযায়ী প্রতিমাসে দাম পরিবর্তন করলে ভোক্তাদের অধিকার ক্ষুণ্ন হবে। এমনকি বিইআরসির এমন ঘোষণার প্রতিবাদসরূপ এলপিজির মূল্য নির্ধারণে গঠিত কমিটিতে ক্যাবের যে প্রতিনিধি মনোনয়ন দিতে হয়, তাও দেয়নি সংগঠনটি।

ক্যাবের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. শামসুল আলম বলেন- প্রতিমাসের কথা বাদই দিলাম, এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের তো এলপিজির দাম বাড়ানোর এখতিয়ারই নেই। তাদের নিজেদের আইন অনুযায়ী, দাম বাড়াতে হবে গণশুনানির মাধ্যমে। সাধারণ মানুষ গ্যাসের দাম নিয়ে খোলামেলা মতামত দেবেন, তারপর আলোচনার মাধ্যমে ঠিক হবে এলপিজির দাম।

cab logo

ক্যাবের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হুমায়ূন কবীর বলেন, এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের আইন অনুযায়ী প্রয়োজন হলে বছরে একাধিকবার দাম পরিবর্তন করা যাবে, কিন্তু সেটা অবশ্যই বছরে ১২ বার নয়। এটা করা হলে আইনের বিদ্যমান লঙ্ঘন হবে।

জানা যায়, পূর্বের আইন অনুযায়ী বছরে একবার এলপিজির দাম পরিবর্তন করতে পারতো এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন। সম্প্রতি আইনটি সংশোধন করে একাধিকবার দাম পরিবর্তনের সুযোগ তৈরি করা হয়েছে। সে অনুযায়ী গত ১২ এপ্রিল এলপিজির দাম পরিবর্তন করা হয়।