advertisement
আপনি দেখছেন

এ বছর রমজান মাস ৩০ দিন পূর্ণ হয়ে আজ ১ শাওয়াল, অর্থাৎ মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। জাতীয় কবি বলেছেন, ‘ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ’।

eid ul fitar 2021 no hugging

রমজানের ঈদ সত্যিই আনন্দের, খুশির ঈদ। এ এক বিরাট উৎসব, মিলন মেলা। মুসলমানদের তথা এই বাংলার চিরাচরিত দৃশ্যগুলোর শ্রেষ্ঠ হলো এই ঈদ। এই দিনকে কেন্দ্র করে ফকির-মিসকিন থেকে শুরু করে বড় লোক এবং পরিবার থেকে শুরু করে রাষ্ট্রীয় পর্যায় পর্যন্ত নানা পরিকল্পনা, আয়োজন, হিসাব-নিকাশ, স্বপ্ন ইত্যাদি থাকে।

ঈদের আগের দিন সন্ধ্যায় কিশোর-কিশোরীদের চাঁদ দেখা, সারারাত স্বপ্নভাঙা-ঘুম শেষ হতে না হতেই সেই মোরগ ডাকা ভোরে উঠে হই-হুল্লোর, নতুন সাবানে গোসল সেরে নতুন জামা-কাপড় পরে মাঠের নামাজ, সালাম, কোলাকুলি- এ রকম নানা দৃশ্য চিরন্তন।

কিন্তু গত বছর যেমন করোনাভাইরাসের মহামারির কারণে এমন নানা আয়োজন ছিল না, তেমনি এ বছরও যখন ঈদুল ফিতর এসে হাজির, তখন চলছে দেশব্যাপী লকডাউন। সবকিছুই করতে হবে নানা বিধিনিষেধ মেনে, সীমিত পরিসরে। তাই বিধিনিষেধে ঘেরা আরেকটি প্রায় ঘরবন্দী ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে আজ।

eid ul fitar 2021

আবহাওয়া অফিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ঈদের দিন সকালেই দেশের কোথাও কোথাও বৃষ্টি হতে পারে। আবার সারাদিনই দেশের কোথাও না কোথাও বৃষ্টি থাকবে। কোনো কোনো এলাকায় বয়ে যেতে পারে ঝড়ো বাতাসও। তবে পরিস্থিতি এতটা খারাপ হবে না যে, ঈদ আনন্দ মাটি হয়ে যাবে।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তারা উভয়ই দেশবাসীকে যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আয়োজনের মাধ্যমে মুসলমানদের এই সবচেয়ে বড় উৎসব পালনের পরামর্শ দিয়েছেন।

কোথায় কখন ঈদ জামাত

সকাল ৭টায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এখানে মোট ৫টি জামাত হবে, যার বাকি চারটি অনুষ্ঠিত হবে যথাক্রমে সকাল ৮টা, ৯টা, ১০টা ও ১০টা ৪৫ মিনিটে।

পুরান ঢাকার চকবাজার শাহী মসজিদে সকাল ৮টা ও ৯টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। লালবাগ শাহী মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায় আর বড় কাটরা মাদ্রাসা মসজিদে সকাল ৮টায় জামাত হবে।

নবাবগঞ্জ বড় মসজিদে সকাল ৭টায়, ৮টায় ও ৯টায়; আজিমপুর কবরস্থান মসজিদে সকাল ৭টা, ৮টা, ৯টা ও ১০টায় এবং ছাপড়া মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টা, সাড়ে ৮টা ও সাড়ে ৯টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

তারা মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ৮টা ও ৯টায়; রায়সাহেব বাজার জামে মসজিদে সাড়ে ৮টায়; নিমতলী ছাতা মসজিদে ৮টা ও ৯টায়, আগামছি লেইন জামে মসজিদে সাড়ে ৭টা ও সাড়ে ৮টায় এবং বায়তুল মামুর জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে সোয়া ৮টা ও ৯টায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ ও শহীদুল্লাহ হল জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায়; গুলশান সেন্ট্রাল মসজিদে সকাল ৬টা; সাড়ে ৭টা ও সাড়ে ৯টায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

মিরপুর দারুস সালামের লালকুঠি বড় মসজিদে ঈদের জামাত সকাল ৭টায়; ধানমণ্ডির তাকওয়া মসজিদে সাড়ে ৭টা ও ৯টায়; ধানমণ্ডির বায়তুল আমান মসজিদে সাড়ে ৮টায় এবং সোবহানবাগ জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে সাড়ে ৮টায়।

মানতে হবে যেসব নির্দেশনা

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের দেয়া নির্দেশনা অনুযায়ী, ঈদের জামাত মসজিদে আদায় করার কথা বলা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে নামাজ আদায়ে পাশাপাশি কোলাকুলি বা হাত মেলানো থেকে বিরত থাকতে হবে।

নির্দেশনায় আরো রয়েছে- বাসা থেকে ওজু করে আসা, মাস্ক পরে মসজিদে প্রবেশ, কাতারে দূরত্ব বজায় রাখা, মসজিদে কার্পেট বিছানো যাবে না, মসজিদের জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না এবং জায়নামাজ নিয়ে আসতে হবে।

এ ছাড়াও রয়েছে জীবাণুনাশক দিয়ে মসজিদ পরিষ্কার করা, প্রবেশদ্বারে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখা, ওজুখানায় সাবান বা হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখা এবং ওজুর সময় ২০ সেকেন্ড হাত ধোয়া।

এ ছাড়া শিশু, বৃদ্ধ, অসুস্থ এবং অসুস্থদের সেবা করা ব্যক্তিদের ঈদ জামাতে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে। মসজিদের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এসব নির্দেশনা মানার বিষয়টি তদারকি করতে বলেছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।