advertisement
আপনি দেখছেন

কোনো স্থানে করোনার সংক্রমণ বেড়ে গেলে রিস্ক না নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রিস্ক না নিয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকা বা স্থান ব্লক (লকডাউন) করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। 

pm hasina cabinet meeting 1প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ফাইল ছবি

জাতীয় সংসদ ভবনে মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী আজ সোমবার এ নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ে আয়োজিত ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান তিনি।

করোনার চলমান পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কোনো নির্দেশনা আছে কি না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, উনি বলেছেন, এখন থেকে সবাইকে বলে দাও যে, লোকাল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (প্রশাসন) সবাইকে অথরিটি দিয়ে দেওয়া হলো। ইতোমধ্যে আমরা সেটা চিঠিতে বলে দিয়েছি। উনি (প্রধানমন্ত্রী) আবারো রিমাইন্ড করে দিতে বলেছেন। যাতে কোনো রকম রিস্ক (ঝুঁকি) না নেওয়া হয়। যারা যেখানে কমফোর্টেবল মনে করবেন, তারা যেন সেখানে ব্লক করে দিয়ে এটাকে (করোনা) থামানোর চেষ্টা করেন।

cabinet secretary anwarul islamমন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, ফাইল ছবি

অন্যদিকে, কেন্দ্রীয়ভাবে সারাদেশে চলমান বিধিনিষেধের বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, চলমান লকডাউন (বিধিনিষেধ) নিয়ে কোনো আলোচনা এখনো নেই। কারণ আরো দুই দিন সময় আছে। লকডাউন আরো বাড়ানো হবে কি না- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, দেখা যাক কী হয়।

এ সময় খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, উত্তরবঙ্গের দিনাজপুরে সংক্রমণ একটু বেড়ে গেছে, আবার যশোরে একটু কমে গেছে। এ ছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জেও একটু কমে এসেছে। এক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী ও সরকারের সিদ্ধান্ত হলো- উনারা (স্থানীয় প্রশাসন) যদি মনে করেন, কোনো এলাকা ব্লক করে দেবেন সেটা তারা স্থানীয়ভাবে সবাই মিলে আলোচনা করে ব্লক করে দিতে পারেন।

চীন ও রাশিয়ার টিকার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আলোচনা চলছে, দেখা যাক কী হয়। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে ব্রিফ করবে।