advertisement
আপনি দেখছেন

দেশে মরণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ২০১ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা এ পর্যন্ত দেশে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এর আগে দেশে সর্বোচ্চ মৃত্যু ছিল ১৬৪ জন। আগের ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১৬৩ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৫ হাজার ৫৯৩। একই সময়ে দেশে আরো ১১ হাজার ১৬২ জনকে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। যা এ পর্যন্ত একদিনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শনাক্ত। গতকাল মঙ্গলবার (৬ জুলাই) ছিল সর্বোচ্চ শনাক্তের দিন। এদিন ১১ হাজার ৫২৫ জন শনাক্ত হয়েছিল। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯ লাখ ৭৭ হাজার ৫৬৮। 

sample test serialবাংলাদেশে করোনার নমুনা সংগ্রহ, ফাইল ছবি

আজ বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কোভিড-১৯ সক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। দেশে করোনা শনাক্তের পর থেকে প্রতিদিনই পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টার আপডেট জানিয়েছে আসছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৩৭ হাজার ১৪৭টি। নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩৫ হাজার ৬৩৯টি। এর মধ্যে আরো ১১ হাজার ১৬২ জনকে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। যা এ পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শনাক্ত। আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছিল ১১ হাজার ৫২৫ জন। যা ছিল এ যাবতকালের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত। এ নিয়ে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৯ লাখ ৭৭ হাজার ৫৬৮ জন। এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৬৮ লাখ ২৯ হাজার ৮৩২টি। 

icu dhaka hospitalসংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় নতুন করে দেখা দিয়েছে আইসিইউ সংকট, ফাইল ছবি

এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে আরো ২০১ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা এ পর্যন্ত একদিনে মৃত্যুর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ। আগের ২৪ ঘণ্টায় ১৬৩ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এর আগে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ছিল ১৬৪, গত ৫ জুলাই। এ ছাড়া এখন পর্যন্ত তৃতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যু দাঁড়িয়েছে ১৬৩ জন, যা ছিল গতকাল মঙ্গলবার (৬ জুলাই)। এ নিয়ে দেশে মোট ১৫ হাজার ৫৯৩ জনের মৃত্যু হলো। ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ১১৯ জন পুরুষ এবং ৮২ জন নারী। এর মধ্যে ১২ জন বাড়িতে এবং বাকিরা হাসপাতালে মারা গেছেন।

২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৩১ দশমিক ৩২ শতাংশ। মোট পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৩১ শতাংশ।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

গত ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে ৬৬ জনই খুলনা বিভাগের। এ ছাড়া ঢাকায় ৫৮, চট্টগ্রামে ২১, রাজশাহীতে ১৮, বরিশালে ৭, সিলেটে ৯, রংপুরে ১৪ এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ৮ জন মারা গেছেন।