advertisement
আপনি দেখছেন

দেশে মরণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ২৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা গতকালের তুলনায় কিছুটা বেশি। আগের ২৪ ঘণ্টায় ২৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২০ হাজার ২৫৫। একই সময়ে দেশে আরো ১৫ হাজার ২৭১ জনকে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। যা গতকালের তুলনায় কিছুটা কম। আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছিল ১৬ হাজার ২৩০ জন। যা একদিনে শনাক্তের ক্ষেত্রে রেকর্ড। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ ২৬ হাজার ২৫৩। 

coronaঈদের পর ফের নতুন করে বাড়ছে করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত, প্রতীকী ছবি

আজ বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কোভিড-১৯ সক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। দেশে করোনা শনাক্তের পর থেকে প্রতিদিনই পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টার আপডেট জানিয়েছে আসছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৫৫ হাজার ৯৮২টি। নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫২ হাজার ২৮২টি। এর মধ্যে আরো ১৫ হাজার ২৭১ জনকে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। যা গতকালের তুলনায় কিছুটা কম। আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছিল ১৬ হাজার ২৩০ জন। যা এ যাবতকালের মধ্যে একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত। এ নিয়ে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১২ লাখ ২৬ হাজার ২৫৩ জন। এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৭৬ লাখ ৬৪ হাজার ৮৭০টি। 

cv sample test booth1বাংলাদেশে করোনার নমুনা সংগ্রহ, ফাইল ছবি

এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে আরো ২৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা গতকালের তুলনায় কিছুটা বেশি। আগের ২৪ ঘণ্টায মৃত্যু হয়েছিল ২৩৭ জনের। এর আগে গত ২৭ জুলাই ২৫৮ জনের মৃত্যু হয়েছিল, যা একদিনে মৃত্যুর ক্ষেত্রে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। এ নিয়ে দেশে মোট ২০ হাজার ২৫৫ জনের মৃত্যু হলো।

২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২৯ দশমিক ২১ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ৫৪ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৬৫ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৪ হাজার ৩৩৬ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১০ লাখ ৫০ হাজার ২২০ জন।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।