advertisement
আপনি দেখছেন

দেশের বিভিন্ন সমস্যা থেকে জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন খাতে নিতে কুমিল্লার ঘটনা ঘটানো হয়েছে। এর সঙ্গে জড়িতদের অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছে বিএনপি। আজ বৃহস্পতিবার এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

bnp mirza fakhrulমির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ফাইল ছবি

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে জাতীয়তাবাদী সমবায় দলের ১১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সভায় তিনি দাবি করেন, দেশের স্থিতিশীলতা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে কুমিল্লার ঘটনা ঘটানো হয়েছে। সরকার তার সংস্থা দিয়ে এই ঘটনা ঘটিয়েছে।

বিএনপিতে কোনো সংকট নেই উল্লেখ করে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেন, সংকট হচ্ছে গণতন্ত্রের, সুষ্ঠু নির্বাচনের, ভোটাধিকারের। এসব অধিকার হরণ করে দেশে একনায়কতন্ত্র কায়েম করেছে আওয়ামী লীগ। তারা এভাবে ক্ষমতা দখল করে আছে, আজীবন থাকতে চায়।

comilla bgb deployed clashকুমিল্লায় সংঘর্ষ, ফাইল ছবি

জাতীয় প্রেস ক্লাব প্রাঙ্গণে রাজনৈতিক দলের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আগে পল্টন ময়দান, মানিক মিয়া এভিনিউ ও মুক্তাঙ্গনসহ বিভিন্ন জায়গায় সভা-সমাবেশ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এখন জাতীয় প্রেস ক্লাবেও সেটি করা হলো। সরকার ক্রমাগতভাবে গণতান্ত্রিক স্পেস সংকুচিত করে ফেলছে।

বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া করোনা পরবর্তী জটিলতায় ভুগছেন জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, চিকিৎসকেরা সাধ্যমতো চেষ্টা করছেন। কিন্তু তার চিকিৎসা দেশে সম্ভব নয়, বিশ্বের উন্নত হাসপাতালে চিকিৎসা প্রয়োজন। অসুস্থ খালেদা জিয়ার জামিন প্রাপ্য হলেও তাকে মুক্তি দেয়া হচ্ছে না। তাকে মুক্তভাবে সুচিকিৎসা নিতে দিন।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি নূর আফরোজ বেগম জ্যোতির সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন বিএনপির শামসুজ্জামান দুদু, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, ছাত্রদলের সাবেক নেতা ইসহাক সরকার প্রমুখ।