advertisement
আপনি পড়ছেন

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে রাষ্ট্রপতির কাছে ফের আবেদন করা হয়েছে। তার সাজা বাতিল বা স্থগিত করে এই সুযোগ দেয়ার দাবিতে আবেদনটি করেন সুপ্রিম কোর্টের ১১ আইনজীবী। সেটির দ্রুত নিষ্পত্তি করতে রাষ্ট্রপ্রধানের কাছে ফের আবেদন করেছেন তারা।

khaleda zia in hospital 10হাসপাতালে খালেদা জিয়া, ফাইল ছবি

গতকাল বৃহস্পতিবার করা সবশেষ আবেদনে সংবিধানের ৪৮/৩ অনুচ্ছেদ মোতাবেক পরামর্শক্রমে মানবিক বিবেচনায় বিষয়টি নিষ্পত্তির আরজি জানানো হয়েছে। ওই ১১ আইনজীবীর পক্ষে এটি পাঠিয়েছেন অ্যাডভোকেট মির্জা আল মাহমুদ ও এসএম জুলফিকার আলী জুনু। প্রথম আবেদনটি করা হয় গত ২৩ নভেম্বর।

বিষয়টি আজ শুক্রবার নিশ্চিত করে অ্যাডভোকেট জুলফিকার আলী জুনু জানান, রাষ্ট্রের অভিভাবক হিসেবে মহামান্য রাষ্ট্রপতি বরাবর করা আগের আবেদনটি দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য আরেকটি আবেদন করা হয়েছে। এতে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার্থে রাষ্ট্রপ্রধানের সংবিধানিক ক্ষমতা প্রয়োগের অনুরোধ জানানো হয়।

আবেদনে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জীবন সুরক্ষা অধিকারের সাংবিধানিক সুযোগ দেয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে। সর্বোচ্চ আদালতের এসব আইনজীবী বিএনপি নেত্রীর ‘মারাত্মক অসুস্থতা’ এবং ‘জরুরিভিত্তিতে বিদেশে চিকিৎসার প্রয়োজনীয়তার’ কথাও তুলে ধরেছেন।

এর আগে বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেলেন বিএনপিপন্থী ১৫ জন আইনজীবীর একটি প্রতিনিধি দল। সেটি পরীক্ষা করে আলোচনা করবেন এবং যতটুকু গুরুত্ব দিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া যায়, সেভাবেই নেয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন আইনমন্ত্রী।

তারও আগে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের কাছে স্মারকলিপি দেয়া হয় গত ২১ নভেম্বর। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের ৫টি দলের পক্ষ থেকে শীর্ষ নেতারা সচিবালয়ে গিয়ে স্মারকলিপিটি হস্তান্তর করেন। 

‘লিভার সিরোসিসে’ ভোগা খালেদা জিয়াকে সবশেষ গত ১৩ নভেম্বর রাজধানীর একটি হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী ‘জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে’ রয়েছেন বলে জানায় দলটি। ফলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেয়ার দাবিতে বিএনপি ও তার পরিবারের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।