advertisement
আপনি পড়ছেন

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. সেলিম হোসেনের অস্বাভাবিক মৃত্যুর প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়টির ৯ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছেন কুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। এছাড়া বাকিরাও হল শাখার বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী বলে জানা গেছে।

kuet gateকুয়েট

অধ্যাপক সেলিম হোসেন ছিলেন কুয়েটের লালন শাহ হলের প্রভোস্ট। অভিযোগ রয়েছে, হলের ডাইনিং ম্যানেজার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হাতে লাঞ্ছিত হন তিনি। এমনকি রুমে অবরুদ্ধ করে তাকে হুমকিও দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনার পর বাসায় ফিরে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং গত ৩০ নভেম্বর হার্ট অ্যাটাকে তার মৃত্যু হয়।

ঘটনার পর শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের এক পর্যায়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। সেই কমিটি সিসিটিভির ফুটেজ এবং অন্যান্য তথ্যাদি পর্যালোচনা করে অভিযোগের সত্যতা পেয়েছেন। এরপর শৃঙ্খলা ও আচরণবিধি ভঙ্গের আওতায় ৯ শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

এর আগে গতকাল শুক্রবার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে কুয়েট বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। এক বিজ্ঞপ্তিতে কুয়েটের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী আনিসুর রহমান ভূঁঞা জানান, ৩ ডিসেম্বর থেকে ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রকার কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ৭৬তম জরুরি সিন্ডিকেট সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।