advertisement
আপনি পড়ছেন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বেঁচে থাকলে একাত্তরের অপরাধের জন্য পাকিস্তানকে আনুষ্ঠানিক ক্ষমার দাবি করতেন। এমন মন্তব্য করেছেন দেশটির সাবেক রাষ্ট্রদূত হুসেন হাক্কানি। আজ রোববার ঢাকায় বিশ্ব শান্তি কনফারেন্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

hussein haqqaniঅনুষ্ঠানে হুসেন হাক্কানি

রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে অতিথি করা হয় হুসেন হক্কানিকে। তিনি বর্তমানে হাডসন ইনস্টিটিউটের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিভাগের পরিচালক। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ব্রিটিশ সাবেক প্রধানমন্ত্রী গর্ডন ব্রাউন, সিঙ্গাপুরের সাবেক প্রধানমন্ত্রী গো চক টং উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমও অংশ নেন অনুষ্ঠানে। এতে ১৪ বছর বয়সে ১৯৭০ সালে পাকিস্তানের করাচিতে বঙ্গবন্ধুকে দেখে তার ভক্ত হয়ে যাওয়ার কথা জানান হুসেন হাক্কানি। ১৯৭০ সালের জাতীয় নির্বাচনের প্রচারে করাচি ন্যাশনাল পার্কে জনসভা করেছিলেন বঙ্গবন্ধু।

peace conferenceঅনুষ্ঠানে অতিথিরা

পাকিস্তানের আনুষ্ঠানিক ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টি অনেক পাকিস্তানি সমর্থন করেন উল্লেখ করে হুসেন হাক্কানি বলেন, এটি কেবল বাংলাদেশের দাবি নয়, সবার দাবি। সমষ্টিগত ক্ষমা প্রার্থনায় কষ্ট মোচন হয় এবং দুই দেশের ভুলে ভরা অতীত মুছে নতুন সম্পর্ক গড়তে সাহায্য করে- এটা যারা বিশ্বাস করে, তাদের দাবি এটি।

বাংলাদেশ ১৯৪৭ সালের আগে ভারতে, ১৯৭১ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানের অংশ ছিল। কিন্তু এখন উভয় দেশের চেয়ে শিক্ষার হার, মাথাপিছু আয় ও কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ বেশি এদেশে। এতেই স্বাধীনতা লাভের ফলে দেশটি কতটা এগিয়েছে, তা স্পষ্ট বোঝা যায়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর পক্ষে এটি সম্ভব হয়েছে, বলেন পাকিস্তানি এই কূটনীতিক।

বঙ্গবন্ধু দেশে ফিরে ভারতীয় সেনাবাহিনী প্রত্যাহার করতে বলেছিলেন উল্লেখ করে হুসেন হাক্কানি বলেন, ইসলামাবাদ-ঢাকার কূটনৈতিক সম্পর্কও স্থাপন করেন। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবি করেন। এই বিচার করে ভবিষ্যতের অপরাধীদের জন্য সতর্কবার্তা দেয়া হয়েছে।

ভারতের মহাত্মা গান্ধী ও দক্ষিণ আফ্রিকার নেলসন ম্যান্ডেলার সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর নাম নিয়ে তিনি আরো বলেন, বাঙালি জাতির সর্বশ্রেষ্ঠ নেতা, দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম সেরা রাজনৈতিক নেতা বঙ্গবন্ধু। তিনি ব্রিটিশ শাসনামলে মাত্র ৬ দিন আর পাকিস্তান আমলে প্রায় ১০ বছর জেলে কাটান।

অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মহান পিতার অসাধারণ কন্যা’ হিসেবে বর্ণনা করে হাক্কানি বলেন, বঙ্গবন্ধুর পথ অনুসরণ করায় তাকে অভিনন্দন। বঙ্গবন্ধুর চিন্তা ও তার কন্যার কর্মে দক্ষিণ এশিয়ায় ভেতর-সীমান্তে সহিংসতাহীন একমাত্র বাংলাদেশ।