advertisement
আপনি পড়ছেন

হিমালয় থেকে আসা হিমেল হাওয়ায় চড়ে আর গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টিতে আবারো আসছে শৈত্যপ্রবাহ। দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়, ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপমাত্রা আরো নামতে পারে বলে আজ শুক্রবার জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

mild cold wave continueচলছে শৈত্যপ্রবাহ, ফাইল ছবি

আবহাওয়া বার্তায় বলা হয়েছে, দু’দিন ধরে চলা গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টির কারণে পঞ্চগড়ে দুই-একদিনের মধ্যে তাপমাত্রা আরো কমতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত নদীর তীরবর্তী এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা দেখা যেতে পারে। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন এলাকায় হালকা বৃষ্টিপাত হতে পারে।

এ বিষয়ে তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের কর্মকর্তা রাসেল শাহ জানান, শুক্রবার সকাল ৯টায় সেখানে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। এটি দেশেরও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। আগামী দুই-একদিন পারদ আরো নামতে পারে।

light a fireআগুন পোহানো, ফাইল ছবি

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, দেশের উত্তরাঞ্চলের কিছু এলাকায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়েছে। যা আগামী ২ দিনে আরো কিছু এলাকায় বিস্তৃত হবে, তাপমাত্রাও হ্রাস পেতে পারে। সাধারণ মানুষ খড়কুটো জ্বালিয়ে শীতের কাঁপন থেকে বাঁচার চেষ্টা করছে, যানবাহন চলছে বাতি জ্বালিয়ে।

জানা গেছে, গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টির সঙ্গে আকাশ মেঘলা থাকায় পঞ্চগড় ঘন কুয়াশায় আচ্ছাদিত হয়ে পড়েছে। সকালে বেলা বাড়ার সঙ্গে কুয়াশা কিছুটা কাটলেও সূর্যের দেখা মিলছে না দুপুরেও। এতে কনকনে শীতে নিম্নআয়ের মানুষেরা কষ্ট পাচ্ছে।

পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক জহুরুল ইসলাম বলছেন, তার জেলায় গরিব ও অসহায়দের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হচ্ছে। জেলার ৫ উপজেলার ৪৩টি ইউনিয়নে সাড়ে ৩৩ হাজার শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে এরইমধ্যে, যা অব্যাহত রয়েছে।

হিমালয়ের নিকটবর্তী হওয়ায় প্রতি বছরই দেশের অন্যান্য অঞ্চলের চেয়ে পঞ্চগড়ে শীত নামে সবার আগে। একইভাবে অন্য জেলাগুলোর তুলনায় দেরিতে শীত বিদায় নেয় এই জেলায়। এর কারণ হচ্ছে, হিমালয় থেকে বয়ে আসা উত্তরী হিম বাতাস এই এলাকার ওপর দিয়ে প্রবেশ করে। এখানে তীব্রতা বাড়িয়ে শীত বিস্তৃত হয় গোটা দেশে।