advertisement
আপনি পড়ছেন

দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা গতকালের চেয়ে কিছুটা বেশি। আগের ২৪ ঘণ্টায় ৮ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এ নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়ে ২৮ হাজার ১৫৪ জনের মৃত্যু হলো। সাম্প্রতিক সময়ে দেশে আবারো বাড়ছে করোনায় সংক্রমণ ও মৃত্যু। 

coronaকরোনাভাইরাসের প্রতীকী ছবি

অপরদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরো ৬ হাজার ৬৭৬ জনকে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। যা গতকালের তুলনায় অনেকটা বেশি। আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছিল ৫ হাজার ২২২ জন। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬ লাখ ২৪ হাজার ৩৮৭ জনে। গত বছরের ২৮ জুলাই দেশে একদিনে সর্বোচ্চ ১৬ হাজার ২৩০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। একই সময়ে দেশে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৪২৭ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৫৩ হাজার ৩২০ জন।

আজ সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কোভিড-১৯ সংক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। দেশে করোনা শনাক্তের পর থেকে প্রতিদিনই পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টার আপডেট জানিয়ে আসছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।  

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয় ৩২ হাজার ৪৩১টি। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩১ হাজার ৯৮০টি। এখন পর্যন্ত ১ কোটি ১৮ লাখ ৯৩ হাজার ৪০৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২০ দশমিক ৮৮ শতাংশ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬৬ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৫ দশমিক ৬২ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৩ শতাংশ।  

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর অর্থাৎ ১৮ মার্চ দেশে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। দেশে এ পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ ২৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে প্রথম চীনের উহানে ভাইরাসটি শনাক্ত হয় বলে দাবি করা হয়। 

গত ২৪ ঘণ্টায় যে ১০ জন মারা গেছেন, তার মধ্যে ৪ জন পুরুষ এবং ৬ জন নারী। এর মধ্যে ৭ জন ঢাকা বিভাগের। এ ছাড়া চট্টগ্রামের ২ এবং বরিশাল বিভাগে ১ জন মারা গেছেন। এ সময়ে দেশের অন্য বিভাগগুলোতে কোনো মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি।