advertisement
আপনি পড়ছেন

পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট-বল্টু খুলে টিকটক ভিডিও করে সারাদেশে আলোচনার জন্ম দিয়েছেন বায়েজিদ তালহা নামের এক যুবক। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ, সিআইডি তাকে গ্রেপ্তার করেছে এবং তার বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে। বর্তমানে ৭ দিনের রিমান্ডে আছে ওই যুবক। এদিকে, গতকাল সোমবার বিকেলে তার গ্রামের বাড়িতে রামদা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালানো হয়।

attack bayezid houseপদ্মা সেতুর নাট-বল্টু খোলা বায়েজিদের বাড়িতে হামলা

বায়েজিদের গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী সদর উপজেলার তেলীখালী গ্রামে। এলাকাবাসী জানায়, ১০-১২টি মোটরসাইকেলযোগে ৩০-৩৫ জনের একটি দল বায়েজিদের বাড়িতে আসে। বাড়ির মানুষ কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই তারা এলোপাতাড়ি হামলা চালিয়ে বসতঘর ভাঙচুর করে। এ সময় ঘরে বায়েজিদের বড় ভাই সোহাগ মৃধার স্ত্রী হাদিসা ছাড়া আর কেউ ছিলেন না।

স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। এ প্রসঙ্গে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি হৃদয় আশীষ বলেন, পদ্মা সেতু একটি জাতীয় সম্পদ। এই সেতুর নাট-বল্টু খুলে তাচ্ছিল্য করা মানে দেশেরই অবমাননা। বায়েজিদের এমন আচরণের কারণে ছাত্রলীগ নয়, সচেতন এলাকাবাসীই প্রতিবাদ করেছে।

baijid talhaগ্রেপ্তারের পর বায়েজিদ তালহা

এর আগে গতকাল সোমবার সকালে বিশেষ ক্ষমতা আইনে বায়েজিদ তালহাসহ অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়। মামলার পর সিআইডির সাইবার পুলিশের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. রেজাউল মাসুদ জানান, হাত দিয়ে পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু খোলা সম্ভব নয়। এতে অবশ্যই সরঞ্জাম ব্যবহার করা হয়েছে।

সিআইডি জানায়, পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের দুটি নাট খুলে হাতে নিয়ে টিকটক ভিডিও বানায় বায়েজিদ। এরপর সেটি তার নিজের টিকটক প্রোফাইলে পোস্ট করে। বিষয়টি নিয়ে নিয়ে সমালোচনা শুরু হলে তিনি তার প্রোফাইল থেকে ভিডিওটি মুছে ফেলেন। পরে তার মোবাইল ফোনের লোকেশন ট্র্যাক করে তাকে শান্তিনগর বাসা থেকে আটক করা হয়।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা যায়, সেতুর রেলিংয়ের পাশে দাঁড়িয়ে দুটি বল্টুর নাট খুলে হাতে নেন বায়োজিদ। এরপর নাট হাতে নিয়ে বলেন, ‘এই হলো পদ্মা সেতু আমাদের... পদ্মা সেতু। দেখো আমাদের হাজার হাজার কোটি টাকার পদ্মা সেতু। এই নাট খুইলা এহন আমার হাতে।’