advertisement
আপনি দেখছেন

করোনার কারণে আটকে আছে ২০২১ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা। এই দুই স্তরের পরীক্ষা হবে কি না, হলেও তা কীভাবে এবং কখন হবে; না হলে কীভাবে তৈরি হবে ফলাফল এবং তা কবে নাগাদ করা প্রকাশ করা হবে- এসব বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসছে আগামীকাল বৃহস্পতিবার।

dr dipu moniশিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, ফাইল ছবি

এদিন বেলা ১১টায় ভার্চুয়ালি জরুরি সংবাদ সম্মেলন করে সরকারের সিদ্ধান্তের বিস্তারিত জানাবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এবারের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া না গেলে ‘বিকল্প পদ্ধতিতে’ পাসের সিদ্ধান্ত আসবে। এ নিয়ে একাধিক প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পাঠিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এসব প্রস্তাবে বিষয় ও পূর্ণমান কমিয়ে শুধু বহুনির্বাচনী প্রশ্নে (এমসিকিউ) পরীক্ষা নেয়ার কথা বলা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে দুই পত্র প্রতি বিষয়গুলো একীভূত করে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা নেয়ার কথা বলা হয়েছে। তবে এমন পরীক্ষাও করোনা পরিস্থিতির উন্নতির ওপর নির্ভর করছে।

ministry of educationশিক্ষা মন্ত্রণালয়, ফাইল ছবি

জানা গেছে, সংক্রমণের হার ১০ শতাংশের নিচে নামলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেয়া হবে। এ ক্ষেত্রে কেন্দ্রের সংখ্যা দ্বিগুণ বাড়ানোর কথাও উল্লেখ করা হয়েছে প্রস্তাবে। এ ছাড়া অন্যান্য আনুষঙ্গিক বিষয়াদিও উল্লেখ করা হয়েছে তাতে।

এর বিকল্প হিসেবে এসএসসির ক্ষেত্রে জেএসসির ফলের ৫০ শতাংশ এবং অ্যাসাইনমেন্ট ও ক্লাস অ্যাক্টিভিটির ৫০ শতাংশ নম্বর নিয়ে ফলাফল প্রস্তুত করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এইচএসসির বেলায় এসএসসির ফলের ৫০ শতাংশ, জেএসসির ২৫ শতাংশ ও অ্যাসাইনমেন্টের ২৫ শতাংশ নম্বর নিয়ে ফলাফল প্রকাশের কথা বলা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এই দুই ধরনের প্রস্তাবের মধ্যে একটি অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেই সিদ্ধান্ত এরইমধ্যে পাঠানো হয়েছে শিক্ষামন্ত্রীর কাছে, যা আগামীকালের সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরনের তিনি।