advertisement
আপনি পড়ছেন

উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগের দাবিতে অনশনে থাকা শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা অনশন ভেঙেছেন। আজ বুধবার (২৬ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের অনুরোধে তারা পানি খেয়ে অনশন ভাঙেন। তবে আন্দোলন চলমান থাকবে বলে জানানো হয়।

sust zafar iqbalশিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙাচ্ছেন ড. জাফর ইকবাল

গত ১৯ জানুয়ারি দুপুর ২টায় আমরণ অনশনে বসেছিলেন শাবিপ্রবির আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এক পর্যায়ে মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আজ সকাল ১০টায় চিকিৎসাধীন সেসব শিক্ষার্থীরাও অনশনস্থলে আসেন। এরপর ড. জাফর ইকবালের অনুরোধে ১৬২ ঘণ্টা পর মুখে পানি নিলেন সবাই।

আন্দোলনের একজন নেতা মোহাইমিনুল বাশার বলেন, সহযোদ্ধাদের কষ্ট আমরা আর মেনে নিতে পারছি না। চোখের সামনে আমরা তাদেরকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিতে চাই না। তাই আন্দোলনের অংশ হিসেবেই অনশন ভাঙার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে অনশন ভাঙা হলেও ব্যাপক উদ্দীপনার সঙ্গেই আন্দোলন চালিয়ে যাব।

sust 1শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

উল্লেখ্য, গত ১৩ জানুয়ারি থেকে বেগম সিরাজুন্নেছা চৌধুরী ছাত্রী হলের প্রভোস্টের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগে তার পদত্যাগসহ ৩ দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন কয়েক শ শিক্ষার্থী। আন্দোলনে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগ হামলা চালালে তা নতুন মাত্রা পায়। এক পর্যায়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা গত ১৫ জানুয়ারি ভিসিকে ক্যাম্পাসের একটি ভবনে অবরুদ্ধ করেন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুলিশ ডাকা হয়। পুলিশ এসে শিক্ষার্থীদের লাঠিচার্জ করে এবং টিয়ার গ্যাস ও রাবার বুলেট ছোড়ে। উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে ক্যাম্পাস বন্ধ ঘোষণা করা হলেও তা মানেননি শিক্ষার্থীরা। উল্টো গত ১৭ জানুয়ারি থেকে ভিসির পদত্যাগসহ ৩ দফা দাবিতে তার বাসভবনের সামনে অবস্থান নেন। দুদিন পর দাবি আদায়ে শুরু হয় অনশন।