advertisement
আপনি দেখছেন

সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে ইতালিতে যাওয়া একটি ফ্লাইটের ২১ জন যাত্রীর শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত করা হয়। এর পরপরই বাংলাদেশি সকল ফ্লাইট নিষিদ্ধ করে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এমতাবস্থায় ইতালিতে যাওয়া কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে থাকা ১২৫ বাংলাদেশিকে বিমান থেকে নামতে দেয়া হচ্ছে না।

qatar airways 1

আজ বুধবার ইতালির স্থানীয় গণমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়, বুধবার রোমের ফিউমিসিনো বিমানবন্দরে অবতরণকারী কাতার এয়ারওয়েজের একটি বিমান থেকে ১২৫ বাংলাদেশিকে নামতে দেয়া হচ্ছে না। কাতার এয়ারওয়েজের ফ্লাইটটি দোহা থেকে ফিউমিসিনো বিমানবন্দরে অবতরণের পর বর্তমানে পাঁচ নম্বর টার্মিনালে অবস্থান করছে।

ইতালির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, ওই বিমানে থাকা ১২৫ বাংলাদেশি আরোহীকে নামতে দেয়া হবে না। তবে কারো জরুরি মেডিকেল সেবার দরকার হলে চিকিৎসার জন্য নামার অনুমতি পাবেন। রোমের স্থানীয় সময় বিকেল ৪টায় ওই ফ্লাইটেই বাংলাদেশি যাত্রীদের আবার দোহায় ফেরত পাঠানো হবে।

কাতার এয়ারওয়েজ কর্তৃপক্ষ বলছে, বিমানের যাত্রীরা কেউই ঢাকা থেকে আসেনি। তাই তাদের সবাইকে নামতে দেয়া উচিত। তাছাড়া কাতার এয়ারওয়েজ ইতালির সরকার এবং ইন্যাকের বিমান পরিবহন সংক্রান্ত সব ধরনের বিধি-বিধান সতর্কতার সঙ্গে অনুসরণ করেই এসব যাত্রীদের পরিবহন করেছে।

ফ্লাইটে থাকা অন্য দেশের ৮০ জনকে নামার অনুমতি দেয়া হয়েছে। বিমানবন্দরে তাদের করোনার নমুনা পরীক্ষা শেষে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।

ইতালির লাজিও অঞ্চলের কোভিড-১৯ ক্রাইসিস ইউনিটের ব্যবস্থাপক আলেসিও ডি’আমাতো বলেন, কাতার এয়ারওয়েজের বিমানটির প্রথম ৩০ যাত্রীর নমুনা ইতোমধ্যে সংগ্রহ করা হয়েছে। বাকিদেরও পরীক্ষার কার্যক্রম চলছে। নামার অনুমতি পাওয়া যাত্রীদের সম্ভাব্য কন্ট্যাক্ট চিহ্নিত করে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে।

sheikh mujib 2020