advertisement
আপনি দেখছেন

মানবপাচার ও অবৈধ মুদ্রা পাচারের অভিযোগে বর্তমানে কুয়েতের কারাগারে বন্দি লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল। তবে তিনি সে দেশের নাগরিক নন বলে নিশ্চিত করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। আজ বৃহস্পতিবার আরব টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়েছে।

mp papul new

কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে সেখানে বলা হয়, বাংলাদেশের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল কুয়েতের নাগরিক নন। তাকে নিয়ে এ ধরনের যত তথ্য বের হয়েছে সেগুলো সত্য নয়। এ বিষয়ে যেকোনো প্রশ্নের উত্তর দিতে কুয়েত সরকারের দরজা সব সময় খোলা।

পরবর্তীতে এক টুইট বার্তায়ও তথ্যটি নিশ্চিত করেছে কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

মূলত গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদে বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, সাংসদ পাপুল কুয়েতের নাগরিক কি না, সে বিষয়ে কুয়েত সরকারের সঙ্গে কথা বলছি। যদি এটা সত্যি হয়, তাহলে তার পদটি (লক্ষ্মীপুর-২ আসন) খালি করে দিতে হবে।

এরপরই কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিষয়টি পরিষ্কার করেছে।

mp papul kweet tweet

এর আগে গত ৭ জুলাই পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, সাংসদ কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল কোনো সরকারি পাসপোর্ট নিয়ে কুয়েতে যাননি। তিনি সে দেশে ২৯ বছর ধরে ব্যবসা করছেন। ওখানকার একটি কোম্পানির সিইও এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক তিনি। কুয়েতের নাগরিকত্ব পাওয়া এ সাংসদকে তারা সে দেশের একজন ব্যবসায়ী হিসেবে গ্রেপ্তার করেছে।

গত ৭ জুন এমপি পাপুলকে কুয়েতে গ্রেপ্তার করা হয়। কুয়েতের অপরাধ তদন্ত বিভাগের হাতে প্রয়োজনীয় প্রমাণ থাকার পরও প্রথমে তিনি দোষ স্বীকার করেননি। পরবর্তীতে তার সামনে ভুক্তভোগীদের ৭ জনকে হাজির করা হয়। তারা যখন ঘটনা বর্ণনা করছিলেন তখন তিনি চুপ ছিলেন।

sheikh mujib 2020