advertisement
আপনি দেখছেন

বাংলাদেশে মানুষের কাছে মোটা অংকের টাকা নিয়ে করোনার ভুয়া সার্টিফিকেট ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে, এমন খবর ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের এমাথা থেকে ওমাথা। সর্বপ্রথম ইতালির একটি প্রভাবশালী পত্রিকা এ নিয়ে প্রতিবেদন করে, এরপর বিশ্বের বিভিন্ন দেশের গণমাধ্যমে উঠে আসে নমুনা পরীক্ষার জালিয়াতির খবর। সর্বশেষ এ নিয়ে একটি প্রতিবেদন করেছে বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী গণমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমস।

new york times

নিউইয়র্ক টাইমস শিরোনাম করেছে, ‘বিগ বিজনেস ইন বাংলাদেশ: সেলিং ফেইক করোনাভাইরাস সার্টিফিকেটস।’ অর্থাৎ বাংলাদেশে বিরাট ব্যবসা: বিক্রি হচ্ছে করোনাভাইরাসে জাল সার্টিফিকেট। ওই খবরে বলা হয়, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের একটা নেগেটিভ সার্টিফিকেটের অনেক মূল্য, কারণ এসব সার্টিফিকেট নিয়ে দেশটির শ্রমিকরা ইউরোপে কাজ করতে আসে।

নিউইয়র্কে প্রচুর বাংলাদেশি প্রবাসীর বসবাস। যুক্তরাষ্ট্রের আর কোনো রাজ্যেই এত বাংলাদেশি নেই। এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পর প্রবাসীরা বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন। এ নিয়ে স্থানীয় প্রতিবেশীদের প্রশ্নের মুখোমুখি হচ্ছেন তারা। প্রবাসীরা মনে করছেন, সরকারের গাফিলতির সুযোগ নিয়ে শাহেদ শুধু করোনায় আক্রান্ত রোগীর সঙ্গেই প্রতারণা করেনি, প্রতারণা করেছেন পুরো বাংলাদেশে এমনকি সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা বাংলাদেশিদের সঙ্গে।

regent hospital dhaka

এই খবরের পর সবচেয়ে বেশি প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে ইতালিতে। দেশটির ফ্রিউলি ভেনেজিয়ে জুলিয়া প্রদেশে বসবাস করা বাংলাদেশি আইরিন পারভীন খান জানান, করোনার ভুয়া সার্টিফিকেট সরবরাহের খবর প্রকাশ হওয়ার পর ইতালিতে বাংলাদেশি প্রবাসীদের সঙ্গে কয়েকটি দুর্ব্যবহারের ঘটনাও ঘটেছে। খবরটির নিচে ইতালিয়ানরা এসে বাংলাদেশ নিয়ে বিদ্বেষমূলক অনেক মন্তব্য করেছে, যা আমাদের মতো প্রবাসীদের খুব কষ্ট দেয়।