advertisement
আপনি দেখছেন

যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছেন বাংলাদেশের আদালতে একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ব্রিটিশ-বাংলাদেশি চৌধুরী মঈন উদ্দিন (৭১)। সম্প্রতি তিনি ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেলের বিরুদ্ধে ৬০ হাজার পাউন্ডের ক্ষতিপূরণ দাবি করে মানহানি মামলা দায়ের করেন।

moien uddin pretee patelব্রিটিশ-বাংলাদেশি চৌধুরী মঈন উদ্দিন ও ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেল- ফাইল ছবি

আজ রোববার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, চৌধুরী মঈন উদ্দিনকে ‘যুদ্ধাপরাধী’ আখ্যা দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে একটি টুইট করেছিলেন ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেল। এর প্রেক্ষিতেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করে ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন চৌধুরী মঈন উদ্দিন।

তার দাবি, গত বছর যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে তাকে 'যুদ্ধাপরাধী' অভিযুক্ত করে একটি মানহানিকর প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। যা মন্ত্রণালয়ের অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টেও প্রকাশ করা হয়। ওই টুইটটিতে রিটুইট করেন ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেল, বিবিসি সাংবাদিক মিশাল হুসাইন, মানবাধিকার কর্মী পিটার টাচেল। সেই টুইটে ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাকে ‘যুদ্ধাপরাধী’ বলে আখ্যা দেন।

টুইটার অ্যাকাউন্টটিতে প্রায় ১০ লাখ ফলোয়ার আছে উল্লেখ করে চৌধুরী মঈন উদ্দিন দাবি করেন, ওই টুইটের কারণে তার মানহানি হয়েছে। তাই তিনি ৬০ হাজার পাউন্ড ক্ষতিপূরণ চেয়ে ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

daily mail newsব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের প্রতিবেদন

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ব্রিটেনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের টুইটার অ্যাকাউন্টে কমিশন ফর কাউন্টারিং এক্সট্রিমিজমের ডকুমেন্ট ‘চ্যালেঞ্জিং হেটফুল এক্সট্রিমিজম’ শেয়ার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত চৌধুরী মঈন উদ্দিনকে তার অনুপস্থিতিতেই একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধ সংগঠনের দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে মৃত্যুদণ্ড দেন। তবে শুরু থেকেই এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন বর্তমানে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে বসবাসকারী মঈন উদ্দিন।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর পরই যুক্তরাজ্যে পালিয়ে যান মঈন উদ্দিন। ৭১ বছর বসয়ী এই যুদ্ধাপরাধী ব্রিটেনের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের (এনএইচএস) পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি স্ত্রী ও চার সন্তান নিয়ে দেশটিতে বসবাস করছেন।