advertisement
আপনি দেখছেন

অভিবাসন নীতি নিয়ে বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরেই সরব কুয়েত। দেশটির সরকার নতুন এ সংক্রান্ত এক কোটা আইন জারি করতে যাচ্ছে যাতে কয়েক লাখ অভিবাসী চাকরিচ্যুত হয়ে নিজ দেশে ফিরতে বাধ্য হবে। নতুন এই খসড়া আইন মোতাবেক দেশটিতে পাঁচ শতাংশের বেশি বাংলাদেশি থাকতে পারবে না।

no more than 5 percent bangladeshi in kuwaitকুয়েতে ৫ শতাংশের বেশি বাংলাদেশি থাকতে পারবে না

আরব নিউজের বরাতে জানা যায়, কুয়েত সরকার দেশটিতে বসবাসরত সরকারি চুক্তিভুক্ত বিদেশি কর্মী, বিভিন্ন রাষ্ট্রের কূটনৈতিক ও কুয়েতিদের আত্মীয়-স্বজনকে এই কোটা থেকে মুক্ত রেখেছে। প্রত্যেকটি দেশের জন্য তারা আলাদা আলাদা কোটার ব্যবস্থা করেছে।

সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী, কুয়েতের মোট জনসংখ্যা ৪৩ লাখ। এর মধ্যে ৩০ লাখই অভিবাসী। শতাংশের হিসাবে যা প্রায় ৭০%। যদি কোনো কোম্পানি নির্ধারিত কোটার বাইরে কোনো দেশের নাগরিককে কাজে নিয়োগ দেয় তাহলে ১০ বছরের জেলের পাশাপাশি ৩ লাখ ২৬ হাজার ৮১৯ ডলার জরিমানার বিধানও রাখা হয়েছে।

Kuwait cityকুয়েত সিটি

নতুন এই কোটা আইন অনুযায়ী কুয়েতে ১৫ শতাংশ ভারতীয় অভিবাসী বসবাস করতে পারবে। শ্রীলঙ্কান, ফিলিপাইন ও মিশরের ১০ শতাংশ অভিবাসী বসবাস করার সুযোগ পাবে। বাংলাদেশি, পাকিস্তানি, নেপালি ও ভিয়েতনামের অভিবাসীরা ৫ শতাংশের বেশি বাস করতে পারবে না।

জানা যায়, কুয়েতে বর্তমানে প্রায় ৩ লাখ বাংলাদেশি প্রবাসী রয়েছেন। হাতে গোনা কয়েকজন ছাড়া তাদের সবাই বিভিন্ন অদক্ষ বা স্বল্প-দক্ষ পেশায় নিয়োজিত।

কিছুদিন আগে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কুয়েতের নতুন অভিবাসী কোটা আইনের ফলে প্রায় আড়াই লাখ বাংলাদেশি প্রবাসী নিজ দেশে ফিরতে পারেন।