advertisement
আপনি দেখছেন

দুই নারী বিয়ে করার পর পণের জন্য নির্যাতনের অভিযোগে আটক হয়েছেন সুইটি সেন নামে নারী! পুরুষ সেজে একে একে দুই মহিলাকে বিয়ে করেছেন তিনি। ঘটনাটি ভারতের উত্তর প্রদেশের। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে শুরুতে নারী নির্যাতন ও পণ আদায়ের অভিযোগ আনা হলেও এখন প্রতারণার মামলা যোগ হয়েছে।

indian woman swety

পুলিশ জানিয়েছে, আটককৃত সুইটি সেন ‍'কৃষ্ণ সেন’ নামে পুরুষের বেশ ধরে চলতেন। কৃষ্ণ সেন নামে ফেসবুকে আইডি খুলে মেয়েদের সাথে প্রেম করতেন তিনি। তারই ধারাবাহিকতায় হলদোয়ানির কাঠগোদাম এলাকার বাসিন্দা এক নারীর সাথে প্রেম করে বিয়ে করেন। 

২০১৪ সালে প্রথম বিয়েতে আট লাখ টাকা পণ নেন তিনি। নিজেকে আলিগড়ের বাল্ব ব্যবসায়ী পরিচয় দিয়ে আবারো পণের দাবিতে স্ত্রীকে মারধর শুরু করেন।

একই সময় তিনি কালাধুঙ্গির অন্য এক মহিলার সাথে প্রেম শুরু করেন এবং বিয়ে করেন। যে নারী প্রথম বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন। হলদোয়ানির তিকোনিয়া এলাকায় দুই স্ত্রীকে নিয়ে একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করা শুরু করেন তিনি। 

সময় গড়াতেই দুই নারী বুঝতে পারেন কৃষ্ণ সেন আসলে পুরুষ নন। শুরুতে দ্বিতীয় স্ত্রীকে টাকার লোভ দেখিয়ে ম্যানেজ করা সম্ভব হলেও বাধ সাধেন প্রথম স্ত্রী। তিনি পুলিশে অভিযোগ করেন।

অভিযোগের পেক্ষিতে পুলিশ সুইটি সেনকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশ মেডিকেল পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয় কৃষ্ণ সেন আসলেই পুরুষ না। সুইটি সেন নামের নারীই পুরুষ সেজে দুটি বিয়েছে করেছেন।

পুলিশের জেরায় সুইট সেন স্বীকার করেছেন সব ঘটনা। তিনি জানিয়েছেন, কিশোর বয়স থেকে তার হাবভাব পুরুষের মতো ছিল। পুলিশ জানিয়েছে, সুইটির দুটি বিয়েতে পরিবারের যে সব সদস্য উপস্থিত ছিলেন তাদের খোঁজা হচ্ছে।

sheikh mujib 2020