advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 12 মিনিট আগে

মুসলিম বিয়ের চিরাচরিত রীতি ভেঙে দেনমোহর হিসেবে বরের কাছ থেকে নগদ অর্থের পরিবর্তে বই নিয়েছেন সানজিদা পারভিন নামের ২৭ বছরের এক তরুণী। তিনি বলেছেন, ‘আমি বরের ওপর আর্থিকভাবে নির্ভরশীল নই, তাহলে ওর কাছ থেকে খামোখা টাকা নেব কেন?’

get book in marraigeবিয়েতে দেনমোহর হিসেবে বই নিলেন সানজিদা

যুগের পর যুগ ধরে চলতে থাকা মুসলিমদের বিভিন্ন ধ্যান-ধারণা ভাঙার নমুনা নিয়ে বর্তমানে আলীগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি করছেন এই তরুণী। নিজের জীবনের ক্ষেত্রেও তাই পুরাতন রীতি মেনে চলার বিপক্ষে তিনি। আর সে কথা নিজের হবু বরকে বোঝাতে মোটেও ভুল করেননি।

তাই তো একুশ শতকের আধুনিক বর ২৯ বছরের মেহেবুব সাহানা প্রায় ৬০ হাজার টাকা খরচ করে দেনমোহর হিসেবে নিজের হবু বউয়ের জন্য বইয়ের পাহাড় কিনেছেন। যেখানে অন্য ধর্মের বেদ-বাইবেলও স্থান পেয়েছে। তাদের ভাষ্য, আমরা ধর্মীয়ভাবে মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করলেও দুজনেই ভারতীয় বাঙালি। তাই আমাদের পরিচয়টা সর্বপ্রথম একুশ শতকের মানুষ, আর এটাই বড় পরিচয়।

পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার কৃষক পরিবারের ছেলে হবু বর মেহেবুব সাহানাও জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সদ্য পিএইচডি ডিগ্রি শেষ করেছেন। দেনমোহর হিসেবে বই উপহার দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘নিরাপত্তা রক্ষীর কাজ করেও বাবা আমাকে লেখাপড়া শিখিয়েছেন। তাই বইয়ের গুরুত্বটা ভালোভাবেই অনুভব করতে পারি। তাছাড়া আমার হবু স্ত্রীও বইয়ের পোকা। তাই সে যখন বললো, দেনমোহর হিসেবে বই চাই, তখন আমিও মোহরানার টাকায় বই কিনে দিতে রাজি হয়ে যাই।’

নতুন বধু সানজিদা পারভিন বলেন, প্রথমে এ ব্যাপারে আমাদের দুই পরিবারের কেউই রাজি ছিলেন না। কিন্তু বিয়েটা তো আমাদের, তাই আমাদের কথাই শেষ কথা। তাছাড়া বাবাকে দেখেছি, গরিব-দুঃখীদেরকে যাকাতের টাকা দান করার সময় টাকার বদলে বই দিয়ে সাহায্য করতে। আর সেখান থেকেই মোহরানার টাকার পরিবর্তে বই নেয়ার ইচ্ছেটা জাগ্রত হয়।

জামাই-বউ দুজনেই বলেন, সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে নিজেদের অধিকারটুকু কাজে লাগানোই সবচেয়ে বড় কথা।

sheikh mujib 2020