advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতের কর্নাটকের একটি গ্রামে বাঘের মতো কালো ডোরা কাটা সাজে ঘুরে বেড়াচ্ছে একটি কুকুর। কেউ মজার ছলে তাকে এমন সাজ দেয়নি, বরং একটি নির্দিষ্ট যুক্তিসঙ্গত কারণেই বাঘের মতো সাজ দেয়া হয়েছে কুকুরটিকে।

tiger dogভারতের কর্নাটকের তীর্থহালি তালুকের নালুরু গ্রামে বাঘের সাজে ঘুরে বেড়ানো কুকুর

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার প্রত্রিকার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, কর্নাটকের তীর্থহালি তালুকের নালুরু গ্রামের শ্রীকান্ত গৌড়া নামের এক ব্যাক্তি কুকুরটিকে এমন সাজ দিয়েছেন। হনুমানের উৎপাত থেকে ক্ষেতের ফসল বাঁচাতেই এমন কৌশলের আশ্রয় নেন তিনি।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে ওই গ্রামের ক্ষেতের ফসল নষ্ট করছিল হনুমানরা। তাদের উৎপাতে একেবারে অতিষ্ট গ্রামের কৃষকরা। তাই কিভাবে হনুমানের ফসল খাওয়া আটকানো যায় তা ভাবতে ভাবতে বাঘের কথা মাথায় আসে শ্রীকান্তের। কিন্তু আসল বাঘ তো আর পাওয়া যাবে না, তাই নকল বাঘেরই ব্যবস্থা করেন তিনি।

প্রথমে তিনি পরীক্ষামূলকভাবে নিজের ক্ষেতের উঁচু জায়গায় একটি পুতুল বাঘ দাঁড় করিয়ে দেন। এতে দেখা যায় হনুমানরা তার ক্ষেতের দিকে ঘেঁসার সাহস পাচ্ছে না। এরপর আরো একটি জমিতে একই কৌশল ব্যবহার করেন তিনি। এতেও ফল পাওয়া যায়। কিন্তু এভাবে হনুমানদের বেশিদিন ঠেকিয়ে রাখা যাবে না তা ভালোভাবেই বুঝতে পারেন শ্রীকান্ত। তাই এবার একটি জলজ্যান্ত কুকুরকেই বাঘের মতো ডোরাকাটা রং করে দেন তিনি।

কলপের রং মাখানো কুকুরটিকে দূর থেকে দেখতে একদম প্রায় জীবন্ত বাঘের মতোই মনে হয়। যেনো একটি সত্যিকারের বাঘ ঘুরে বেড়াচ্ছে ক্ষেতের চারপাশে। শ্রীকান্তের এমন কৌশল ভালোভাবেই কাজে এসেছে। বাঘের মতো দেখতে কুকুরটির ভয়ে হনুমানরা এখন আর তার ফসলের ক্ষেতের দিকে আসতে সাহস করে না। তাই ফসলও নষ্ট হয় না।