advertisement
আপনি দেখছেন

পৃথিবীতে বেঁচে থাকার জন্য প্রতিটি প্রাণীরই অক্সিজেনের প্রয়োজন হয়। তাই বায়বীয় নিঃশ্বাসই প্রাণিজগতের সর্বোপরি বিষয়। তবে সম্প্রতি ইসরায়েলের তেল-আবিব বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের একদল গবেষক এমন একটি প্রাণী আবিষ্কার করেছেন, যাদের বেঁচে থাকার জন্য অক্সিজেন গ্রহণের প্রয়োজন হয় না।

henigua selmonicola

গবেষকদের দাবি, হেননেগুয়া স্যালমিনিকোলা (বৈজ্ঞানিক নাম) নামের এই প্রাণীটির মূলত এক ধরনের পরজীবী। এরা স্যামন মাছের কোষের মধ্যে বসবাস করে। অনেকটা জেলিফিশের মতো দেখতে এ ক্ষুদ্র প্রাণীটির শরীরে রয়েছে মাত্র ১০টি কোষ।

তারা জানান, এই প্রাণীটির দেহে কোনো মাইটোকন্ড্রিয়াল জিনোম নেই। তাই তাদের বেঁচে থাকার জন্য অক্সিজেনের প্রয়োজন পড়ে না। সাধারণত মানুষসহ পৃথিবীর প্রতিটি প্রাণীর শরীরেই প্রচুর পরিমানে মাইটোকন্ড্রিয়াল জিনোম থাকে। যা শ্বাস-প্রশ্বাস প্রক্রিয়ার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

scientist reachers

গবেষক দলের নেতৃত্বে থাকা প্রফেসর ডরথি হুকন বলেন, প্রতিটি প্রাণীর ক্ষেত্রে বায়বীয় শ্বাস-প্রশ্বাস শক্তি সঞ্চারের একটি প্রধান উৎস। তবে তাদের আবিষ্কৃত প্রাণীটি এ প্রক্রিয়ায় শক্তি সঞ্চার করে। তবে প্রাণীটি ঠিক কীভাবে শক্তি সঞ্চার করে সে বিষয়ে স্পষ্ট নন তারা।

তাদের ধারণা, প্রাণীটি স্যামন মাছের কোষ থেকে শক্তি সংগ্রহ করে। তাদের এই আবিষ্কার বিবর্তনের ধারাকে অদ্ভুত দিকে নিয়ে যেতে পারে।

এদিকে গবেষক দলের এই আবিষ্কার প্রাণীজগৎ নিয়ে কাজ করা বিজ্ঞানীদের মধ্যে রীতিমতো আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। পাশাপাশি তাদের মনোভাবও পুরোপুরি বদলে দিয়েছে।

sheikh mujib 2020