advertisement
আপনি দেখছেন

কত অভিনেতা-অভিনেত্রীই তো ঝাঁ চকচকে রুপালি জগত ছেড়ে চলে যান, কিন্তু জায়রা ওয়াসিমের চলে যাওয়াটা একেবারেই অন্যরকম। তিনি স্পষ্ট করে বলেছেন, আল্লাহর ভয়ে অভিনয় ছেড়ে দিয়েছেন তিনি। তার ধর্মীয় বিশ্বাস আর অভিনয় ক্যারিয়ারের মধ্যকার অন্তর্গত দ্বন্দ্ব যখন তুঙ্গে তখন শেষ পর্যন্ত জয় হয় বিশ্বাসের। সময়টা ২০১৯ সালের জুন মাস।

zaira oneজায়রা ওয়াসিম যখন বলিউডের রুপালি জগতে

সবকিছু ছেড়েছুড়ে জায়রা ওয়াসিম চলে যান কাশ্মিরে অবস্থিত তার নিভৃত পল্লীতে। কোনো ফ্লপ সিনেমার দুঃখে কাতর হয়ে নয়, জায়রা যখন অভিনয় ছাড়েন তখন তিনি বলিউডের ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যবসাসফল সিনেমার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী। মাত্র ৪ বছরের অভিনয়ে পেয়েছিলেন ফিল্মফেয়ারসহ আরো বেশ কয়েকটি পুরস্কার।

শুধু বলিউড নয়, সারা বিশ্বের সিনেমাপ্রেমী মানুষের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় ‘দঙ্গল’ খ্যাত অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিম এখন কী করছেন- এমন কৌতুহল অনেকের মনে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ সংক্রান্ত অসংখ্য প্রশ্নের মুখোমুখি হন তিনি। এ নিয়ে বারকয়েক মুখ খুলেছেন নিজের ফেসবুক পেজে। বলেছেন, ২০১৬ সালের আগে আমার জীবনটা যেখানে ছিল, ২০১৯ এর জুনের পর ঠিক সেখান থেকে শুরু করেছি।

শুধু কি তুখোড় অভিনয়? কাশ্মিরের সবচেয়ে মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে জায়রার অবস্থান একদম ওপরের দিকে। তিনি মাধ্যমিক পাশ করেছেন ৯২ শতাংশ মার্কস পেয়ে। তারপর অভিনয়ের কারণে পড়াশোনার কিছুটা ছন্দপতন হয়। গত বছর নতুন করে সবকিছু শুরু করেছেন। বলিউড ছেড়েছেন বটে, কিন্তু একদম পালিয়ে যাননি। তুঙ্গস্পর্শী জনপ্রিয়তা কাজে লাগাচ্ছেন ধর্মের প্রচারে। ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রামে এখনো সরব পদচারণা জায়রা ওয়াসিমের।

zaira muftiঅভিনয় ছাড়ার আগে জম্মু ও কাশ্মিরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির সঙ্গে

এই তো ৭ মে এক লাইনের একটি টুইট করেছেন জায়রা ওয়াসিম। লিখেছেন, ‘জীবনের এক ঘণ্টা সময় অবহেলাই হয়তো নষ্ট করে দিতে পারে বহু বছরের মূল্যবান তাকওয়াপূর্ণ প্রচেষ্টা।’ 

ফেসবুকে কোরআন ও হাদীসের বিভিন্ন বাণী শেয়ার করে প্রায়ই নিজের বক্তব্য তুলে ধরছেন। ‘পরকালে আমরা প্রথমেই নামাজের ব্যাপারে প্রশ্নের মুখোমুখি হবো’ এমন একটি হাদিস শেয়ার করেছেন ৭ মে। পাশাপাশি কীভাবে এই রোজার সময়টা কাজে লাগানো যায়, সে বিষয়ে নিজের বক্তব্যও দিয়েছেন তিনি।