advertisement
আপনি দেখছেন

মাও ইনের বয়স যখন মাত্র দুই বছর, তখন একদল অপহরণকারি তাকে তুলে নিয়ে গিয়েছিলো। এরপর কেটে গেছে তিন তিনটি দশক এবং আরো দুই বছর। এই ৩২ বছরে পাগলের মতো সন্তানকে খুঁজেছেন ইনের বাবা-মা। কিন্তু কিছুতেই সন্ধান মিলেনি।

parents find their son after 32 years

অবশেষে দীর্ঘ ৩২ বছর পর মাও ইন তার বাবা-মাকে ফিরে পেয়েছেন। সম্প্রতি চীনের পুলিশ বাহিনীর এক সংবাদ সম্মেলনে মাওকে তার বাবা-মার কাছে দেওয়ার জন্য একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

“আমি চীনের হাজার হাজার মানুষকে ধন্যবাদ দিতে চাই, যারা নানা সময়ে আমার সন্তানকে ফিরে পেতে সাহায্য করার চেষ্টা করেছেন,” সন্তানকে কাছে পেয়ে এই মন্তব্য করেন লি জিংঝি, মাওয়ের মা।

মাও ইনের কী হয়েছিলো?

১৯৮৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে মাও জন্ম গ্রহণ করেন। এ বছরের জানুয়ারি মাসে সাউথ চায়না পোস্ট সংবাদপত্রকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মাওয়ের মা বলেন, ছোটবেলায়ই মাও ছিলেন খুব বুদ্ধিমান, আদুরে ও সুস্বাস্থ্যবান।

১৯৮৮ সালের অক্টোবরের ১৮ তারিখে চীনের সানজি প্রদেশের জিয়ান নামক এলাকার একটি নার্সারি থেকে সন্তানকে বাসায় নিয়ে যাচ্ছিলেন তার বাবা মাও ঝেনজিং।

বাসায় যাওয়ার পথে পানি খেতে চায় মাও। পানি পানের জন্য একটি হোটেলের সামনে সন্তানকে নিয়ে দাঁড়িয়েছিলৈন ঝেনজিং, এক মুহূর্ত এদিক ওদিক তাকাতেই খেয়াল করেন তার সন্তানকে তুলে নেওয়া হয়েছে।

এরপর থেকে জিয়ান অঞ্চলে হাজার হাজার পোস্টার ছাপিয়ে সন্তানকে ফিরে পাওয়ার চেষ্টা করেছে ঝেনজিংয়ের পরিবার। কিন্তু কোনোভাবেই মাওকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। এক দুইবার কিছু লোক তাদেরকে আশ্বাস দিয়েছে বটে, কিন্তু শেষ পর্যন্ত সফল হয়নি।

মাওয়ের মা সন্তানকে খোঁজার জন্য নিজের চাকরি ছেড়ে দেন। তিনি চীনের অন্তত ১০টি প্রদেশে এক লক্ষ প্রচারপত্র বিলি করেন। কিন্তু কোনোভাবেই সফল হননি।

বছরের পর বছর ধরে বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলের মাধ্যমে সন্তানকে খুঁজেছেন মাওয়ের মা। এক্স-ফ্যাক্টর নামের তুমুল প্রচারিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমেও নিজের সন্তানকে খুঁজে পেতে মানুষের সাহায্য চেয়েছেন তিনি। কিন্তু কিছুতেই কাজ হয়নি।

২০০৭ সাল থেকে মাওয়ের মা ‘বেবি কাম ব্যাক হোম’ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবি প্রতিষ্ঠানের সাথে কাজ করা শুরু করেন। এই প্রতিষ্ঠানটি হারিয়ে যাওয়া সন্তানদের তাদের বাবা-মায়ের কাছে ফিরতে সাহায্য করে।

চীনের সংবাদ মাধ্যম জানাচ্ছে, মাওয়ের মা এখন পর্যন্ত ২৯টি সন্তানকে তাদের বাবা মায়ের কাছে ফিরতে সহায়তা করেছেন। কিন্তু অনেক খোঁজাখুঁজির পরও নিজের সন্তানের হদিস পাচ্ছিলেন না তিনি।

মাওকে যেভাবে পাওয়া গেলো

এপ্রিল মাসে দক্ষিণ-পশ্চিম চীনের সিচুয়ান প্রদেশের এক লোকেন সন্ধান পায় চীনের পুলিশ, যে অনেক বছর আগে জিয়ান অঞ্চল থেকে একটি শিশুকে দত্তক নিয়েছিলেন।

পুলিশ খোঁজ নিয়ে দেখে দত্তক নেওয়া শিশুটি এখন ৩৪ বছর বয়সী যুবক। কর্তৃপক্ষ তার ডিএনএ টেস্ট করে এবং তার ডিএনএর নমুনা মাও ঝেনজিং এবং লি জিংঝির সাথে মিলে যায়।

মাও ইনের নাম পরিবর্তন করে হু নিনজিং রাখা হয়েছিলো। তিনি বর্তমানে হোম ডেকোরেশন ব্যাবসা করেন। সংবাদ মাধ্যমকে তিনি বলেছেন, ভবিষ্যতে কী হবে তা তিনি জানেন না। আপাতত বাবা-মায়ের সাথে থাকার কথা বলেছেন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, ১৯৮৮ সালে বর্তমান ৮৪০ ডলারের বিনিময়ে তাকে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছিলো। মাওয়ের মা তার সন্তানকে ফিরে পাওয়ার ঘটনাকে ‘জীবনের সেরা উপহার’ হিসেবে ব্যক্ত করেছেন।

মাওয়ের হারিয়ে যাওয়ার মামলাটি এখনো চলমান। যে পরিবারে মাও বেড়ে উঠেছেন, সে বিষয়ে পুলিশ কোনো রকম তথ্য প্রকাশ করেনি।