advertisement
আপনি দেখছেন

ব্যাংকের চাকরির জন্য আবেদন করেছিলেন এক যুবক। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তা গ্রহণ করেননি। এতেই ক্ষোভ চেপে বসে ওই যুবকের। আর ক্ষোভ থেকেই নিজ বাড়িতেই খুলে বসেন ওই ব্যাংকের একটি ভুয়া শাখা। কার্যক্রমও ভালোই চলছিল তার। কিন্তু এক সপ্তাহের মাথায় ধরা পড়ে যায় তার জালিয়াতির ঘটনা। পরে ১৯ বছরের ওই যুবকসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

boy open bank branchবাড়ি থেকে ব্যাংকের বিভিন্ন সরঞ্জামসহ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ

সম্প্রতি এ ঘটনাটিই ঘটে ভারতের চেন্নাই থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরের কুদ্দালোরের পানরুতি বাজার এলাকায়। অভিযুক্ত ওই যুবকের নাম কমল।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বিসনেস স্ট্যান্ডার্ড জানায়, স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়াতে (এসবিআই) চাকরি করতেন কমলের বাবা-মা। কমলের বয়স যখন ১০ বছর তখন চাকরিরত অবস্থায় তার বাবা মারা যায়। পরে চাকরির নির্ধারিত মেয়াদ শেষে অবসরে নেন তার মা-ও। এরপর ওই ব্যাংকেই চাকরির জন্য আবেদন করেন কমল। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তা গ্রহণ না করে তাকে ফিরিয়ে দেন। এতে তার মনে ক্ষোভ চেপে বসে।

চাকরি না পাওয়ায় ওই ব্যাংকেরই একটি ভুয়া শাখা খুলে বসেন নিজ বাড়িতে। ব্যাংকের সাইনবোর্ড থেকে শুরু করে কম্পিউটার সিস্টেম, লকার, রিসিপ্ট, এমনকি ওয়েবসাইটও তৈরি করেন কমল। ব্যাংকের নতুন শাখা খোলায় ওই এলাকার বাসিন্দারাও খুশি ছিলেন। কমলের কার্যক্রমও ভালোই চলছিল।

standard bank of indiaস্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়াতে (এসবিআই)- ফাইল ছবি

কিন্তু বেশি দিন এ জালিয়াতি চালিয়ে যেতে পারেননি তিনি। ওই ব্যাংকের স্থানীয় একটি পুরান শাখার গ্রাহকরা নিজেদের অ্যাকাউন্ট নতুন শাখায় স্থানান্তরের আবেদন করলে ধরা পড়ে যায় তার জালিয়াতির ঘটনা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এসবিআইয়ের ওই পুরান শাখার ম্যানেজার জোনাল কর্তৃপক্ষের কাছে যখন জানতে চান, একই এলাকায় এত কাছাকাছি দুটি শাখা কেন খোলা হলো তখন কর্তৃপক্ষ জানায় তারা নতুন কোনো শাখা খোলেন নি। এতেই কমলের জালিয়াতির বিষয়টি পরিষ্কার হয় সবার সামনে। পরে জালিয়াতির কারণে কমলসহ তিনজনকে গ্রেপ্তরা করে পুলিশ।

sheikh mujib 2020