advertisement
আপনি দেখছেন

বয়স একটি সংখ্যা মাত্র! এই কথায় আর কেউ বিশ্বাস করুক না করুক ফ্লোরিডার এডিথ মুরওয়ে ট্রায়না করেন। আর সে বিশ্বাসেই তো ১০০ বছর বয়সেও গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম তুলতে পেরেছেন তিনি। সবচেয়ে বেশি বয়সের পেশাদার ভারোত্তোলক হিসেবে তিনি এ রেকর্ড গড়েন।

edith murwayএডিথ মুরওয়ে

জীবনের ১০০টি বসন্ত পার করা এডিথের শরীরে বয়সের ছাপ পড়েছে। ভাঁজ পড়েছে চামড়াতেও। কাঁধটা একটু সামনের দিকে ঝুঁকে গিয়েছে। এগুলো শারীরিক ব্যাপার। সব সময় নিয়ন্ত্রণে না-ও থাকতে পারে। কিন্তু ইচ্ছেশক্তিতে এতটুকু দাগ নেই তার। পুরোটাই তরুণ, চনমনে, তাতে ভাটা পড়েনি একরত্তিও।

এক সময় নাচের শিক্ষিকা ছিলেন এডিথ। ভারোত্তোলন শুরু করেন ৯১ বছর বয়সে। বন্ধু কারমেন গাটওর্থের আমন্ত্রণে তার জিমে গিয়েছিলেন। সেখানেই অন্যদের ভারোত্তোলন করতে দেখেন তিনি। তার প্রশ্ন ছিল, সবাই পারলে তিনি পারবেন না কেন? বয়সের দিকে না তাকিয়ে শুরু করে দেন ভারোত্তোলন। প্রথম দিকে কিছু সমস্যা হতো। তবে ধীরে ধীরে ভার তোলা এডিথের অভ্যাসে পরিণত হয়।

edith murway record রেকর্ডের স্বীকৃতি হাতে এডিথ মুরওয়ে

এখন প্রায় ৬০ কিলোগ্রাম ওজন তুলতে পারেন ফ্লোরিডার এই শতায়ু। আর এর জন্য বিভিন্ন জায়গায় পুরস্কারও পেয়েছেন। এবার গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের খাতাতেও নাম লিখিয়ে ফেললেন এডিথ।

নিজের এই কৃতিত্বে এডিথ তো খুশিই, তার চেয়েও বেশি আনন্দিত বন্ধু তথা ট্রেনার কারমেন। তবে এ বড় সাফল্যের পরও প্রশিক্ষণে কোনো কামাই নেই শতায়ু এডিথের। কারণ আরো বেশি ওজন নিজের হাতে তুলতে চান তিনি।

*ভিডিওটি সংগৃহীত