advertisement
আপনি দেখছেন

করোনার ভ্যাকসিন নিতে গিয়েছিল ইন্দোনেশিয়ার ১২ বছরের এক বালক। নামটা জানতে চেয়েছিল কর্মরত স্বাস্থ্যকর্মীরা। এতেই বিপাকে পড়ে যান তারা। কারণ নাম জিজ্ঞাসা করতেই সে এবিসি পড়তে শুরু করে। কয়েকবার জিজ্ঞাসা করার পর জানা যায়, সে পড়ছিল না, তার নাম বলছিল। তার নাম এবিসিডিইএফজিএইচআইজেকে জুজু! মানে এ থেকে কে পর্যন্ত!

abcdefghijk zuzuটিকা নিচ্ছে এবিসিডিইএফজিএইচআইজেকে জুজু

ফাস্টপোস্ট ডটকমে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানা যায়, ওই বালকের বাবা শব্দছক করতে ভালবাসেন, সে কারণেই বালকটির এভাবে বর্ণভিত্তিক নাম রাখা হয়েছে। আর জুজু হল তার মা-বাবা জুহরো ও জুলফাহমি-এর প্রথম অক্ষরের সমন্বয়।

গত ২১ অক্টোবর টিকা দিতে গেলে ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা প্রদেশের বাসিন্দা এ বালকের এই ‘র্কীতি’ প্রকাশ পায়। পরে স্বাস্থ্যকর্মীরা ওই বালকের পরিচয়পত্রের একটি প্রতিলিপি পৌঁছে দেন স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের কাছে। সেখান থেকেই খবর ছড়িয়ে পড়ে দ্রুত। একপর্যায়ে বিষয়টি নেটমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়।

abcdefghijk zuzu picএবিসিডিইএফজিএইচআইজেকে জুজু

পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বালকটির বাবাই তার এমন নাম রাখেন। তবে তিনি নাম নিয়ে আরো কেলেঙ্কারি ঘটাতে পারতেন। কারণ তার আরো দুই সন্তান রয়েছে। তাদের নাম তিনি ঠিক করেছিলেন এনওপিকিউআরএসটিইউভি এবং এক্সওয়াইজেড। তবে পরিবারের বাধার মুখে তা আর কার্যকর হয়নি।

কারণ বালকটির যে নাম রাখা হয়েছে, তাই নিয়ে ইতোমধ্যে বিস্তর ঝামেলায় পড়তে হয়েছে। সে কথা তাদের অজানা নয়। তবে ওই বালকের মা জানিয়েছেন, তিনি সবসময় ছেলেকে বলেন, নাম নিয়ে ইতিবাচক চিন্তা রাখতে। নাম নিয়ে কেউ আক্রমণ করলেও সেটা গায়ে না মাখতে। আপাতত এভাবেই চলছে এবিসিডিইএফজিএইচআইজেকে জুজুর দিনকাল।