advertisement
আপনি দেখছেন

রাসুল (সা.) এর ওফাতের পর হজরত আবু বকর (রা.) খিলাফতের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। সময়টা ছিলো ইসলামের ইতিহাসে খুবই নাজুক। একদিকে ধর্মত্যাগের হিড়িক, অন্য দিকে ভন্ড নবীর উদ্ভব, মুসলমানদের একটি অংশ যাকাত দিতে অস্বীকৃতি জানানো- এককথায় ওই সময় খিলাফতের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করে আবু বকর (রা.) মুসলমানদের মধ্যে ঐক্য বজায় রেখেছেন।

first tenth of ramadan

যে কারণে ঐতিহাসিকগণ হজরত আবু বকর (রা.) -কে ‘ইসলামের ত্রাণকর্তা’ উপাধি দিয়েছেন। 

খিলাফতের দায়িত্ব গ্রহণ করে জনগণের উদ্দেশ্যে হজরত আবু বকর (রা.) যে ভাষণ দিয়েছেন, তা আজও জনগণের প্রতিনিধিত্বকারী সরকারের জন্য পাথেয়। রাষ্ট্রের প্রতি নাগরিকদের দায়িত্ব ও কর্তব্য এবং মহান আল্লাহ তাআলার সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক মজবুত করার সহজ উপায় বলা হয়েছে সে ভাষণে।

আসুন সংক্ষেপে জেনে নিই, ভাষণে যে ১২টি উপদেশ দিয়েছিলেন প্রথম খলিফা হজরত আবু বকর (রা.)।

১. হে আমার দেশবাসী! আমি তোমাদের আল্লাহকে ভয় করার উপদেশ এবং আল্লাহর দেখানো হেদায়াতের ওপর অটল থাকার পরামর্শ দিচ্ছি।

২. আল্লাহ এবং সৎপথপ্রাপ্ত নেতার আনুগত্য করবে। নেতার আনুগত্যের মধ্যেও তোমাদের জন্য কল্যাণ রয়েছে।

৩. সাবধান! নফসের আনুগত্য করবে না। নফসবিজয়ী ব্যক্তিই প্রকৃত কল্যাণের অধিকারী।

৪. সাবধান! অহংকার করবে না। যে মাটি থেকে অহংকারীকে সৃষ্টি করা হয়েছে, একদিন সে এবং তার অহংকার মাটিতেই মিশে যাবে।

eidul azha

৫. সাবধান! মানুষের অভিশাপ থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে চলবে।

৬. মনোবল দৃঢ় রাখো। তবেই যে কোনো লক্ষ্যে তোমরা সফল হবে।

৭. শুধু ভালো কাজ করাই সওয়াব নয়, খারাপ কাজ থেকে বেঁচে থাকাও সওয়াব। তাই খারাপ কাজ থেকে বেঁচে থাকো।

৮. ভালো কাজ করো। ভালো কাজ অবশ্যই আল্লাহ কবুল করেন।

৯. যে কাজ আল্লাহর আজাব ডেকে আনে, তা ছেড়ে দাও। আর আল্লাহর রহমত ডেকে আনে যে কাজ, তা আঁকড়ে ধরো।

১০. আল্লাহর আজাবকে ভয় করো, এবং অন্যকেও ভয় দেখাও।

১১. মনে রেখো, আল্লাহ তায়ালাই একমাত্র সাহায্যকারী। তিনি সাহায্য না করলে ভালো কাজ করা সম্ভব নয়। মন্দ কাজ থেকে বিরত থাকার জন্যও তার সাহায্যের প্রয়োজন।

১২. সাবধান! হিংসা করো না। নিজের অধিকার আদায়ে সবসময় সচেষ্ট থাকো।

বিখ্যাত মুসলিম ঐতিহাসিক ইবনে আসাকির মুসা বিন উকবরা (রা.) সূত্রে হজরত আবু বকরের এই ভাষণটি বর্ণনা বরেন। আল্লামা জালালুদ্দিন সুয়ুতি (রহ.) তারিখুল খুলাফায় ভাষণটি ইবনে আসাকিরের সূত্রে উল্লেখ করেছেন।

sheikh mujib 2020