advertisement
আপনি দেখছেন

সালাত বা নামাজের অন্যতম একটি ফরজ হলো, যে পোষাক পড়ে সালাত আদায় করা হবে তা পবিত্র হওয়া। অপবিত্র পোষাকে সালাত আদায় করা হারাম। তবে এমন কিছু পোষাক আছে, যা পবিত্র, কিন্তু সে সব পোষাক পড়ে সালাত পড়া মাকরূহ। আবার এমন পোষাক আছে যা হারাম নয়, মাকরূহও নয়।

namaz 2

সালাতের পোষাক সম্পর্কে এমন জরুরি ৫টি মাসআলা আলোচনা করা হলো আজ।

১. নোংরা-ছেড়া-ময়লা পোষাক পড়ে সালাত আদায় করা মাকরূহ

ভালো পোষাক না থাকলে নোংরা-ময়লা-ছেড়া পোষাক পড়ে সালাত আদায় করাতে অসুবিধা নেই। কিন্তু কেউ যদি শুধু নামাজের জন্য নোংরা-ছেড়া পোষাক নির্ধারণ করে রাখে- ফকিহদের দৃষ্টিতে এটা মাকরূহ। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ বলেছেন, ‘তোমরা নামাজের সময় সুসজ্জিত পোষাক পড়ে নাও’- এ আয়াতের আলোকে গবেষকরা বলেন, মানুষের সামনে যেতে লজ্জা হয় ইচ্ছাকৃতভাবে এমন পোষাক পড়া মাকরূহ।

২. কলকারখানার শ্রমিকদের ব্যাপারে ভিন্ন কথা

কলকারখানার শ্রমিকদের পোষাক ময়লা-দুর্গন্ধময় থাকে। আর প্রতি ওয়াক্ত নামাজে ভালো পোষাক পড়াও সম্ভব নয়- এমন শ্রমিকদের ব্যাপারে ফকিহরা বলেন, যেহেতু তারা ইচ্ছা করে নামাজের জন্য এমন পোষাক পড়েনি, পরিস্থিতির কারণে পোষাক ময়লা হয়ে গেছে, তাদের জন্য ময়লা কাপড়ে নামাজ পড়া দোষণীয় নয়। তবে পোষাক যদি এমন ময়লা-দুর্গন্ধময় হয়ে পড়ে যে, মানুষের সামনে যাওয়াও অসম্ভব; তাহলে এমন পোষাকে নামাজ পড়া উচিত নয়।

prayer believer

৩. প্রাণীর ছবি আছে- এমন কাপড়ে নামাজ পড়া উচিত নয়

প্রাণীর ছবি আছে এমন কাপড় পড়ে নামাজ পড়া কিংবা প্রাণীর ছবিওয়ালা চাদর জায়নামাজ হিসেবে ব্যবহার করা মাকরূহ। এমনকি নামাজীর সামনে যদি কোনো প্রাণীর ছবি সম্বলিত চাদর, জামা, পেইন্টিং থাকে, তাহলেও তা মাকরূহ।

৪. পশুর চামড়া গায়ে জড়িয়ে নামাজ পড়া জায়েজ

জবেহ করা পশুর চামড়া যদি পরিশোধন করে চাদর বা জামা হিসেবে কেউ ব্যবহার করতে চায় এবং নামাজের সময় তা গায়ে রাখে- এ ব্যাপারে শরিয়তের কোনো নিষেধ নেই।

৫. টাখনুর উপরে প্যান্ট উঠিয়ে নামাজ পড়া, নামাজ শেষে আবার নামিয়ে ফেলা

নামাজ এবং নামাজের বাইরে সবসময় টাখনুর ওপর প্যান্ট-পাজামা-লুঙ্গি পড়া পুরুষের জন্য আবশ্যক। অনেকে শুধু নামাজের সময় টাখনুর ওপর কাপড় উঠিয়ে রাখেন, নামাজ শেষে আবার কাপড় নামিয়ে ফেলেন- এটা মন্দের ভালো ছাড়া আর কীই বা বলা যায়। রাসুল (সা.) বলেছেন, টাখনুর নিচে কাপড় ঝুলিয়ে পড়া অংশটুকু জাহান্নামে ফেলা হবে।’

এ বিষয়ে হেদায়া, ফতোয়ায়ে আলমগিরি এবং ফিকহুসসুন্নাহর সালাত অধ্যায় দেখুন।

sheikh mujib 2020