advertisement
আপনি দেখছেন

সমালোচনাকারী গণমাধ্যমে হানা দিচ্ছে ভারত সরকার। তল্লাশির নামে প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। করোনাভাইরাস নিয়ে সরকারের ব্যর্থতা প্রকাশ করলে মোদি সরকারের রোষানলে পড়ছে দেশটির গণমাধ্যম।

india mediaসমালোচনাকারী গণমাধ্যমে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ

সম্প্রতি মধ্য প্রদেশে দুটি গণমাধ্যম অফিসে তল্লাশি চালানো হয়ছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভারত সরকার সমালোচনা সহ্য করতে পারছে না। সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনাকারীরা প্রতিনিয়ত হুমকির মধ্যে রয়েছে। এএফপির খবর।

মধ্য প্রদেশে সরকারের সমালোচনাকারী একটি দৈনিক পত্রিকা ও একটি টেলিভিশন চ্যানেলের অফিসে তল্লাশি চালিয়েছে ভারতের কর কর্তৃপক্ষ। তাদের অভিযোগ, এই দুটি গণমাধ্যম করোনাকালীন ভুল তথ্য ছড়িয়ে দিয়ে জনমনে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে। পত্রিকা ও চ্যানেলটি হলো হিন্দি ‘দৈনিক ভাস্কর’ এবং ’ভারত সমাচার চ্যানেল’।

india pm norendra modiনরেন্দ্র মোদি

কর কর্তৃপক্ষের কোনো বক্তব্য পাওয়া না গেলেও স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, গণমাধ্যম দুটির বিরুদ্ধে প্রতারণা ও মিথ্যা তথ্য প্রকাশের প্রমাণ পেয়েছে সরকার। এপ্রিল ও মে মাসে দৈনিক ভাস্করে মহামারীতে ভারত সরকারের অব্যবস্থাপনা নিয়ে সিরিজ প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এসব প্রতিবেদনে সরকারের কারণে সৃষ্ট সঙ্কট আদ্যোপান্ত তুলে ধরা হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার দৈনিক ভাস্কর তাদের অনলাইন ভার্সনে জানিয়েছে, গত ছয় মাস ধরে করোনায় দেশের বাস্তব পরিস্থিতি আমরা তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। করোনায় মৃতদের গঙ্গায় ফেলে দেওয়ার বিষয়ে প্রতিবেদনে ভয়ঙ্কর সব তথ্য প্রকাশ করা হয়েছিল।

খবরে বলা হয়, মহামারিতে সরকারি সহয়তা না পাওয়ায় মানুষ তাদের পরিবারের সদস্যদের মৃতদেহ নদীতে ফেলে দিচ্ছিল। এছাড়া বহু মরদেহ নদীর বালুতে পুতে রাখা হয়। অর্থ সংকটে এসব লাশের যথাযথ সৎকার করতে পারেনি তারা।

গত মাসে পত্রিকাটির সম্পাদক ওম গৌর নিউইয়র্ক টাইমসে একটি কলাম লিখেছিলেন, গঙ্গার মৃতদেহগুলো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রশাসনের ’ব্যর্থতা এবং প্রতারণা’র প্রতীক। ভারত সমাচার চ্যানেলের এডিটর ইন চিফ ব্রিজেস মিশরা বলেন, সরকারি অভিযানে তাদেরকে হয়রানি করা হয়েছে। তবে এতে আমরা ভীত নই। আমরা সত্য প্রকাশ করে যাব এবং উত্তর প্রদেশের ২৪০ মিলিয়ন মানুষের পাশে আছি।

সরকারের সমালোচনাকারী গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে মোদি সরকার বহুবার অবস্থান নিয়েছে। চলতি বছর রিপোর্টার্স উইথাউট বর্ডার জরিপে প্রকাশ করে, গণমাধ্যমের স্বাধীনতার সূচকে ভারতের অবস্থান ১৮০ দেশের মধ্যে ১৪২তম। কিন্তু মোদি সরকার তা অস্বীকার করেছে।

কংগ্রেস নেতা রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট টু্ইটারে বলেন, অভিযানের নামে গণমাধ্যমকে দমন করা হচ্ছে। মোদি সরকার কোনো ধরণের সমালোচনা সহ্য করতে পারছে না। দিল্লীর গভর্নর অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেন, গণমাধ্যমকে ভয় দেখাচ্ছে সরকার।

উল্লেখ্য, ভারতে করোনায় এ যাবৎ চার লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। তবে প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি বলে মনে করা হচ্ছে।