advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতের বিহার রাজ্যের মধুবনী জেলায় বুদ্ধিনাথ ঝা ওরফে অবিনাশ ঝা নামের এক সাংবাদিক নিখোঁজ হওয়ার কয়েকদিন পর তার পোড়া লাশ পাওয়া গেছে। কিছুদিন আগে মেডিকেল ক্লিনিকের সাথে সম্পর্কিত কিছু কেলেঙ্কারি ফাঁস করে দিয়েছিলেন ২৩ বছর বয়সী ওই সাংবাদিক। এরই জেরে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এনডিটিভি।

bihar journalistবুদ্ধিনাথ ঝা ওরফে অবিনাশ ঝা

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, অবিনাশ ঝা স্থানীয় একটি নিউজ পোর্টালে কর্মরত ছিলেন। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি রিপোর্ট পোস্ট করেন অবিনাশ। এর মূল বিষয় ছিল, রাজ্যজুড়ে ছড়িয়ে থাকা ভুয়া ক্লিনিক বা চিকিৎসাকেন্দ্র। এর ফলে বেশ কয়েকটি ক্লিনিক বন্ধ হয়ে যায়।

এরপরই সাংবাদিক অবিনাশ ঝা নিখোঁজ হন। নিখোঁজ হওয়ার দুদিন আগেও তিনি ফেসবুকে একটি পোস্ট করেছিলেন অবৈধ ক্লিনিকের বিরুদ্ধে। অভিযোগ পাওয়া গেছে, রিপোর্ট করতে গিয়ে বিষয়টির গভীরে চলে যাওয়ায় অবিনাশ একদিকে লাখ লাখ টাকা ঘুষের প্রস্তাব এবং হুমকি- উভয়ই পেয়েছিলেন।

সিসিটিভি থেকে পাওয়া ফুটেজ অনুসারে, অবিনাশ ঝাকে গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে স্থানীয় থানা থেকে প্রায় ৪০০ মিটার দূরে বেনিপট্টির লোহিয়া চকের কাছে শেষবারের মতো দেখা গিয়েছিল। মোবাইল ফোনে কথা বলার জন্য তাঁর বাড়ি থেকে বেশ কয়েকবার কাছাকাছি লেনের দিকে হেঁটে গিয়েছিলেন। গলায় হলুদ স্কার্ফ পরে রাত ৯টা ৫৮ মিনিটে শেষবারের মতো বাড়ি থেকে বের হন তিনি। এরপর স্থানীয় চক, অন্য একটি বাড়ি এবং বেনিপট্টি থানার পাশ দিয়ে হেঁটে যান। এরপর থেকে চারদিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন। পরিবারের অভিযোগ, অপহরণ করা হয়েছিল ওই সাংবাদিককে।

গত শনিবার গ্রামের লাগোয়া হাই রোডে একটি অগ্নিদগ্ধ দেহ পড়ে রয়েছে দেখে স্থানীয় এক যুবক অবিনাশের পরিবারকে খবর দেয়। পরিবারের সদস্যরা গিয়ে আঙুলের আংটি, পায়ের দাগ ও গলার হার দেখে অবিনাশের দগ্ধ দেহ চিহ্নিত করেন। পুলিশের প্রাথমিক ধারণা, ওই সাংবাদিককে জীবন্তই জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে।