advertisement
আপনি পড়ছেন

ডাকাত হলেই যে খারাপ হতে হবে, তেমনটা নয়। বরং ডাকাতদের সাথে খারাপ ব্যবহার না করলে তারাও ডাকাতি করা অর্থ থেকে কিছুটা ফেরত দিয়ে যেতে পারে, যেমনটা ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ এলাকায়। খবর হিন্দুস্তান টাইমস।

robberyদুই ডাকাতের ঘটনায় হতবাক গেরস্থ, ফাইল ছবি

মুর্শিদাবাদের ফারাক্কা ব্যারেজ আবাসনের একটি বাড়িতে থাকেন ফারাক্কা ব্যারেজ হাইস্কুলের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক। গত সোমবার রাতে খাওয়া-দাওয়ার পর বাড়িতে বসেছিলেন তিনি ও তার ভাই। বাড়ির দরজা খোলা থাকার সুযোগে হাসুয়া ও ভোজালি হাতে ভেতরে ঢুকে পড়ে দুই যুবক। গলায় অস্ত্র ধরে নির্দেশ দেয় যা আছে দিয়ে দিতে। প্রধান শিক্ষক চুপচাপ থাকলেও তার ভাই কিছুটা বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন। ডাকাতরা অবশ্য রক্তারক্তিতে যাননি, বাধাদানকারী ভাইকে ওয়াশরুমে আটকে রাখেন।

অবস্থা দেখে প্রবীণ শিক্ষক নিজেই আলমারি থেকে ১৫ হাজার টাকা বের করে দেন। তারপরও দুই ডাকাত আরো তল্লাশি চালায়। ডাইনিং টেবিলের ওপর বাজারের জন্য রাখা দেড় হাজার টাকা, দুটি মোবাইলও নিয়ে নেয় তারা।

2 robbersডাকাত, ফাইল ছবি

বের হয়ে যাওয়ার সময় দুই ডাকাতের একজন ওই প্রধান শিক্ষকের পা ছুঁয়ে প্রণাম করেন। শিক্ষক তখন কিছুটা সাহস পেয়ে বলেন, তোমরা তো সবই নিয়ে যাচ্ছ। যদি বাজার করা এবং ফিজিওথেরাপির জন্য কিছু টাকা রেখে যাও, তাহলে ভালো হয়।

ডাকাতরা তার আবেদনে সাড়া দেয়। ডাকাতির টাকা থেকে পুরো ২০০ টাকা ফিরিয়ে দেয়। এমনকি যাওয়ার আগে একটি মোবাইল ফোনও ফেরত দিয়ে যায় আজব দুষ্কৃতিকারীরা! ডাকাতদ্বয়ের এ কীর্তি দেখে বিস্ময়ে হতবাক হয়েছিলেন ওই শিক্ষক। পরে খবরটি জানতে পেরে আরেক দফা হতবাক হয় এলাকাবাসী।